লালপুরে ছাত্রলীগ কর্মী হত্যা

৪ জনের মৃত্যুদন্ড, একজনের যাবজ্জীবন

প্রকাশ : ১২ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০

নাটোর প্রতিনিধি

নাটোরের লালপুরের ছাত্রলীগ কর্মী মোয়াজ্জেম হোসেন খান্নাস হত্যা মামলায় ৪ জনের মৃত্যুদ- ও একজনের যাবজ্জীবন দিয়েছে আদালত। মামলায় বাকী ১৩ জনকে খালাস দেওয়া হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোহম্মদ সাইফুর রহমান সিদ্দিক এই আদেশ দেন।

মৃত্যুদ- প্রাপ্তরা হলেন লালপুরের বাহাদুরপুর গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে শুকুর হোসেন ওরফে বাবু, শহিদুল ইসলাম মাস্টারের দুই ছেলে শামীম হোসেন ও সুজন হোসেন এবং আব্দুল মালেকের ছেলে আব্দুল মতিন। যাবজ্জীবন দ-প্রাপ্ত হলেন ফয়েজ উদ্দিনের ছেলে সান্টু মিয়া। মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের সহযোগি আইনজীবী অ্যাড. আবুল কালাম আজাদ জানান, অষ্টম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর ২০০২ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি লালপুর উপজেলার হাবিবপুর গ্রামে ছাত্রলীগ কর্মী খান্নাসকে গুলি করে ও কুপিয়ে হত্যা করে তৎকালীন বিএনপি ও সহযোগি সংগঠনের নেতারা। পরবর্তীতে বিএনপি নেতারা নিহতের পরিবারকে মামলা করতে বাঁধা দেয়। এর প্রতিবাদে নিহতের পক্ষে তার সংগঠনের নেতাকর্মীরা সড়ক অবরোধ করে রাখলে রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজির নির্দেশে মামলা নিতে বাধ্য হয় পুলিশ। এ ঘটনায় নিহতের বাবা শুকুর মৃধা বাদী হয়ে ২৩ জনকে আসামি করে লালপুর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। পরে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা থানার উপ-পরিদর্শক মোয়াজ্জেম হোসেন তদন্ত শেষ করে ১৮ জনের নামে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন।

আইনজীবী বলেন, মামলায় অনেক ত্রুটি বিচ্যুতি থাকায় প্রত্যাশিত রায়ের প্রতিফলন হয়নি। পরবর্তীতে উচ্চ আদালতে মামলা নিয়ে লড়াই করা হবে। দীর্ঘ ১৭ বছর পর স্বাক্ষ্য গ্রহন শেষে বৃহস্পতিবার দুপুরে আদালতের বিচারক মোহাম্মদ সাইফুর রহমান সিদ্দিক দীর্ঘ শুনানি শেষে মামলার রায় ঘোষণা করেন।

 

"