৪ সন্তানের জননীকে গলাটিপে হত্যার অভিযোগে স্বামী গ্রেফতার

প্রকাশ : ১৬ মার্চ ২০১৯, ০০:০০

ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি

ঢাকার ধামরাইয়ে পরকিয়ায় বাঁধা দেওয়ায় ৪ সন্তানের জননীকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। গত বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার বানেশ্বর গ্রাম থেকে মৃতদেহ উদ্ধার করেছে ধামরাই থানা পুলিশ। হত্যার অভিযোগে স্বামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

এলাকাবাসি ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার খাতরা গ্রামের শুকুর আলীর মেয়ে সালমার (৪৭) সঙে একই উপজেলা বানেশ্বর গ্রামের কয়েদ আলীর ছেলে নুর মুহাম্মদের বিয়ে হয়। বিয়ের পর তাদের ঘরে ৩ মেয়ে ও এক ছেলে সন্তান হয়। দুই মেয়েকে বিয়ে দেয়া হয়েছে। স্বামী নুর মুহাম্মদ এর মধ্যে বিদেশেও যায়। ভালই চলছিল তাদের সংসার। কিন্তু এর মধ্যেই স্বামী কুমিল্লার একটি মেয়ের সঙে পরকিয়ায় জড়িয়ে তাকে বিয়ে করে। স্বামীর বিয়ের ঘটনা জানার পর তাদের সংসারে শুরু হয় অশান্তি। গত বুধবার রাতে দ্বিতীয় স্ত্রীকে ঘরে তুলবে এ নিয়ে শুরু হয় ঝগড়া। এক পর্যায়ে সালমাকে গলাটিপে হত্যা করে স্বাভাবিক ভাবে চলাফেরা করতে থাকে স্বামী নূর মুহাম্মদ। সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে হত্যার আলামত পেয়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। এ ব্যাপারে নিহতের মেয়ের জামাই বাদি হয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

ধামরাই থানার এসআই (তদন্ত) কামাল হোসেন বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। পরে নিহতের মেয়ের জামাই বাদি হয়ে একটি অভিযোগ দয়ের করে। অভিযোগের ভিত্তিতে নিহতের স্বামী নুর মোহাম্মদকে গ্রেফতার করা হয়। ময়না তদন্তের জন্য লাশটি ঢাকা সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট পেলে বলা যাবে এটি হত্যা না আত্মহত্যা।

 

"