ঠাকুরগাঁওয়ে বেওয়ারিশ কুকুরে অতিষ্ঠ মানুষ

প্রকাশ : ১২ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি

ঠাকুরগাঁওয়ে বেড়েছে বেওয়ারিশ কুকুরের উপদ্রব। এতে অতিষ্ঠ শহরবাসী। বেশ কয়েক বছর ধরে সরকাররি উদ্যোগে কুকুর নিধন অভিযান বন্ধ থাকার কারণে এ অবস্থা হয়েছে বলে মনে করছেন স্থানীয়রা।

গতকাল বুধবার সরেজমিনে শহরের চৌরাস্তা, হলপাড়া, বসিরপাড়া, মন্দিরপাড়া, সরকারপাড়া, রোড, হাজীপাড়া, ঘোষপাড়া, আশ্রমপাড়া, মুন্সিপাড়াসহ কয়েকটি এলাকায় দেখা গেছে দল বেঁধে কুকুরের অবাধ বিচরণের চিত্র। বিভিন্ন সময় কুকুরের আক্রমনের শিকার হয়েছেন অনেকেই। এদিকে কুকুরের উপদ্রব বেড়ে যাওয়ায় কোমলমতি শিশুরা বিদ্যালয়ে আসা-যাওয়ার পথে প্রতিনিয়ত আতঙ্কে থাকে।

সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী নুসরাত আক্তার বলেন, কয়েকদিন আগে স্কুলে যাওয়ার পথে ঘোষপাড়া এলাকায় কয়েকটি বেওয়ারিশ কুকুর আমাকে ধাওয়া করে। অল্পের জন্য সেদিন কুকুরের কামড় থেকে বেঁচে যাই। বসিরপাড়া এলাকার বাসিন্দা আব্দুল খালেক, ওমর ফারুকসহ অনেকেই জানান, ছেলেমেয়েদের স্কুলে পাঠিয়ে তারা দুশ্চিন্তায় থাকেন।

মন্দিরপাড়া এলাকার সাবিনা ইয়াসমিন বলেন, বেওয়ারিশ কুকুরের অত্যাচারে ছেলেমেয়েরা নিরাপদে বাড়ি থেকে বের হতে পারছে না। সবসময় আতঙ্কে থাকতে হচ্ছে। হলপাড়া এলাকার সফিকুল ইসলাম বলেন, কুকুরের উপদ্রবের কারণে গাড়ি নিয়ে রাস্তায় চলাচল করা যায়না। পৌর কর্তৃপক্ষ সবকিছুর ট্যাক্স বাড়িয়েছে কিন্তু সেবার মান বাড়ায়নি।

এ ব্যাপারে ঠাকুরগাঁও পৌরসভার সচিব রাশেদুর রহমান বলেন, কুকুরের উপদ্রব বেড়েছে, কিন্তু কুকুর নিধনের বিষয়ে হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা আছে। তাই কুকুর নিধনে অভিযান বন্ধ আছে। সড়কে চলাচলের সময় সকলকে সচেতন হওয়ার অনুরোধ করেন তিনি। উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা: আব্দুর রহিম বলেন, কুকুরের কামড়ে জলাতঙ্ক রোগ হয়। কুকুরের কামড়ে ভ্যাকসিন না নিয়ে অপচিকিৎসা করলে মৃত্যু অনিবার্য বলেও জানান তিনি।

"