সরাসরি সরকারের কাছে ধান-চাল বিক্রির সুযোগ পাচ্ছেন না কৃষক

প্রকাশ : ১২ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০

রাউজান (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি
ama ami

চট্টগ্রামের রাউজান উপজেলায় আমন চাষীদের কাছ থেকে সরাসরি ধান কিনছে না উপজেলা খাদ্য অধিদপ্তর। উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা বলছেন সরকার ধানের পরিবর্তে এবার নিচ্ছে সিদ্ধ চাল কিনছেন। তাও নেবেন মিলারদের কাছ থেকে।

স্থানীয় কৃষকরা জানিয়েছেন, তারা কোনো সময় সরকারের খাদ্য বিভাগে কাছে ধান চাল বিক্রির সুযোগ পায়নি। কখন কি ভাবে সরকারি ভাবে ধান চাল কেনা হয় তাও কেউ জানেন না। স্থানীয় কৃষকরা জানিয়েছে গত কয়েক বছর থেকে এই উপজেলায় বোরো ও আমনের বাম্পার ফলন হচ্ছে। প্রতিবছর উপজেলার কৃষকদের লোকসান গুনতে হয়। তবু বাপ দাদার কৃষিকাজের পেশা বুকে আঁকড়ে রেখে মাঠে ফসল ফলাচ্ছে। কৃষকরা অভিযোগের করে বলেন, সরকারি বিভিন্ন প্রচার মাধ্যমে বলছে সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ধান-চাল কিনবেন। অথচ এর সুফল উপজেলার কোনো কৃষক এখন পর্যন্ত পায়নি। শুনা যায় এই সুফল ভোগ করেন মধ্যস্বত্বভোগী মিলাররা।

উপজেলার বিভিন্নস্থানের কৃষকদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, অধিকাংশ কৃষক মাঠে নামেন ঋনের টাকার ওপর নির্ভর করে। মাঠ থেকে ধান উঠিয়ে ঋন পরিশোধের তাগিদে ধানের ক্রেতা খুঁজতে হয়। ক্রেতা হিসাবে পাওয়া যায় মিলারদের সি-িকেট করে রাখা লোকজনকে। তারা প্রতিমন ধানে কিনে সাড়ে ছয়শ থেকে সাতশত টাকা করে। প্রতি বছর এই দামে ধান বিক্রি করে কৃষকদের লোকসান গুনতে হয়।

এ বিসয়ে কথা বললে উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা বিদুর্শী চাকমা বলেন, সরকারি ভাবে ধান কেনা হয়ে থাকে বোরো মৌসুমে। আমন মৌসুমে কিনা হয় সিদ্ধ চাল। তাও ধান কিনা হয়ে থাকে লাইসেন্সপ্রাপ্ত মিলারদের কাছ থেকে। তিনি আরো বলেন, সরকারি ভাবে যেই নীতিমালায় ধান কেনা হয়ে থাকে সেই নীতিমাল মেনে কৃষকরা ধান সরবরাহ করতে পারেন না।

উপজেলা কৃষি বিভাগ সূত্রে জানা যায়, এবার আমন মৌসুমে লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১১০২৫ হেক্টর। এর মধ্যে স্থানীয় জাত ২০০ হেক্টর এবং উফসী জাত ১০৮২৫ হেক্টর। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বেলায়েত হোসেন বলেন, ‘আমরা কৃষকদের মাঠ পর্যায়ে প্রযুক্তিগত তথ্য ও পরামর্শমূলক সেবা প্রদান করে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করেছি। কিন্তু সরকারি ভাগে ধান চাল ক্রয়ের নীতিমালা স্থানীয় কৃষকদের জন্য কঠোর হওয়াতে তাদের পক্ষে সরাসরি সরকারি ভাবে বিক্রি সম্ভব হয় না। এই সুযোগটি নিয়ে থাকে মধ্যস্বত্বভোগীরা। ফলে কৃষকরা প্রকৃত দাম পাচ্ছে না।

"