বগুড়ায় পুলিশ পরিচয়ে ২২ দোকানের মাল লুট

প্রকাশ : ০৯ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০

বগুড়া প্রতিনিধি
ama ami

বগুড়ার কাহালু উপজেলার দেওগ্রাম বাজারে পুলিশ পরিচয়ে পাহারাদারদের ডেকে নিয়ে বেঁধে রেখে ২২টি দোকান লুটের খবর পাওয়া গেছে। স্থানীয় ব্যবসায়ীদের দাবি দোকানগুলো থেকে প্রায় ৩৫ লাখ টাকার মালামাল লুট করা হয়েছে। গত সোমবার রাত ১টায় এ ঘটনা ঘটে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে খবর পেয়ে থানা পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বাজারের ৬ পাহারাদারকে থানায় নিয়ে যায়।

থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে আটক ওই বাজারের পাহারাদার হামেদ আলী, সোলেমান হোসেন, সাহের আলী, আব্দুল গোফফার, জাহাঙ্গীর হোসেন ও শহিদুল ইসলাম জানান, সোমবার রাতে তারা তিনভাগে বিভক্ত হয়ে বাজার পাহারা দিচ্ছিলেন। রাত ১টার দিকে একটি ট্রাক দেওগ্রাম স্ট্যান্ডে এসে দাঁড়ায়। ওই ট্রাক থেকে অন্তত ২০ জন লোক নেমে সামনে থাকা দুই পাহারাদারকে ডেকে নেয়। তারা নিজেদের পুলিশের লোক পরিচয় দিয়ে জানায় মাদকের একটি চালান আটক করতে তারা অভিযানে এসেছেন। এজন্য তারা ওই বাজারের সব পাহারাদারকে সহযোগিতা করার জন্য একত্রিত হতে বলেন। সব পাহারাদার সেখানে পৌঁছলে ডাকাতদল অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে তাদের বেঁধে ফেলে। পরে তাদের বাজারের নিকটবর্তী ফাঁকা মাঠে নিয়ে ফেলে রাখা হয়। তারা জানায়, ডাকাতদল তাদের বেঁধে রেখে লুটপাট করে চলে যাওয়ার পর সকালে স্থানীয় লোকজন গিয়ে তাদের বাঁধন খুলে মুক্ত করে।

দেওগ্রাম বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি নাছিম উদ্দিন জানান, ডাকাতদল ওই বাজারের মোট ২৮টি দোকানের তালা ভাঙলেও ২২টি দোকানের মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। তিনি বলেন, প্রতিটি দোকানেই তারা ক্যাশ বাক্স ভেঙ্গে নগদ অর্থ নিয়েছে। এছাড়া দামী সিগারেট, ওষুধপত্র, কাপড়-চোপড়, মোবাইলের ক্র্যাচ কার্ড, মেমোরী কার্ডসহ বিভিন্ন সামগ্রী লুট করে নিয়ে গেছে। নগদ টাকাসহ লুটপাট হওয়া মালামালের মূল্য প্রায় ৩৫ লাখ টাকা বলে দাবি করেন তিনি।

বগুড়ার কাহালু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শওকত কবির বলেন, গতকাল মঙ্গলবার সকালে ঘটনা জানার পর তিনিসহ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (নন্দীগ্রাম সার্কেল) আনোয়ার হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। বাজারের ৬ জন পাহারাদারকে আটক করা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

"