আশুলিয়ায় ধর্ষণের একদিন পর কিশোরীর মৃত্যু

প্রকাশ : ০৮ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০

আশুলিয়া (ঢাকা) প্রতিনিধি
ama ami

ঢাকার আশুলিয়ায় ধর্ষণের ঘটনায় লিখিত অভিযোগ দায়েরের একদিন পর নির্যাতনের শিকার কিশোরীর মৃত্যু হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে ধর্ষণের ঘটনায় অপমান ও ক্ষোভে আত্মহত্যা করছে বলে পুলিশের দাবি। কিশোরির পরিবার থেকে একে ‘রহস্যজন মৃত্যু’ হিসেবে দাবি করা হচ্ছে। গতকাল সোমবার সকালে আশুলিয়ার জামগড়া স্থানীয় নারী ও শিশু স্বাস্থ্য কেন্দ্র হাসপাতাল থেকে কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

জানা যায়, গত রোববার দুপুরে আশুলিয়া থানায় ধর্ষণের ঘটনায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে ছিলেন নির্যাতিত ওই কিশোরী। এ ঘটনায় পুলিশ আবদুর রহিম নামে একজনকে আটক করেছে। রহিম পাবনার সাঁথিয়া থানার পিপুলিয়া গ্রামের আবদুর সাত্তারের ছেলে।

কিশোরীর লিখিত অভিযোগে দেখা যায়, আশুলিয়ার জামগড়ার পোশাক কারখানা থেকে সন্ধ্যায় ছুটি শেষে বের হয়ে যাওয়া পথে শিপন ও রিপনসহ আরো দুই বখাটে তার গতিরোধ করে। পরে তাদের সহায়তায় রিপন তাকে ধর্ষণ করে।

নিহত কিশোরীর মায়ের দাবি, গত শনিবার সন্ধ্যায় আশুলিয়ার গোরাট এলাকা পোশাক কারখানা থেকে ছুটি শেষে কথিত প্রেমিক রহিম তাকে কৌশলে নির্জন স্থানে নিয়ে যায়। পরে সেখানে আরো দুইজন মিলে তাকে ধর্ষণ করে।

এদিক আজ (সোমবার) সকালে কিশোরীর গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে নারী ও শিশু স্বাস্থ্য কেন্দ্র হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। নিহতের বাবা জানান, শনিবার রাতে মেয়ে ফোন করে টাকা চেয়ে বলে, তাকে বাঁচাতে হলে দ্রুত যেন টাকা পাঠায়। পরে রাতে অপরাধীরা তার মেয়েকে বাসার সামনে ফেলে দিয়ে যায়। আমি এ ঘটনার উপযুক্ত বিচার চাই। অপরাধীদের ফাঁসি চাই।

এ দিকে ধর্ষণের ঘটনায় লিখিত অভিযোগের মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তার বলেন, অভিযোগ পাওয়ার পর ঘটনাস্থলে যাই। অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা করি।

এ বিষয়ে আশুলিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) জাবেদ মাসুদ জানান, এ ঘটনায় ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য একজনকে আটক করা হয়েছে। তবে ধর্ষণের ঘটনা ও মৃত্যুর কারণ এখনো নিশ্চিত নয়। বিস্তারিত তদন্ত ও ময়নাতদন্ত শেষে বলা যাবে।

 

"