বিয়ের প্রলোভনে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ, প্রতারক প্রেমিক আটক

প্রকাশ : ০৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০

সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি

বিয়ের প্রলোভনে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার লাহাপাড়া এলাকায় এক কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে অমল চন্দ্র দাস নামের সনাতন ধর্মাবলম্বী এক যুবকের বিরুদ্ধে। অমল উপজেলার পানাম নগরে ‘দিশা আলোঘর’ নামের একটি এনজিও সংস্থার কর্মী। গত শুক্রবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। গতকাল শনিবার ভূক্তভোগী ওই কলেজ ছাত্রী বাদি হয়ে সোনারগাঁ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। প্রতারক অমল চন্দ্র দাস কুমিল্লার বরুরা থানার সাহাপুর এলাকার অনিল চন্দ্র দাসের ছেলে।

লিখিত অভিযোগে কলেজ ছাত্রী উল্লেখ করেন, অমল চন্দ্র দাস তার পরিচয় গোপন করে নয়ন নাম ধারণ করে মুঠোফোনে কলেজ ছাত্রীর সঙ্গে দীর্ঘ তিন বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করে। তাছাড়া উপজেলার পানাম নগরে অবস্থিত এনজিও সংস্থার কার্যালয়ে নিয়েও একাধিকবার ধর্ষণ করে। ধর্ষণের বিষয়টি কলেজ ছাত্রী তার পরিবারকে জানাতে চাইলে নয়ন (ছদ্দনাম) তাকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে শান্ত করে। সম্প্রতি কলেজ ছাত্রীকে প্রেমিক অমল বিয়ের প্রলোভনে দেখিয়ে সোনারগাঁয়ে লাহাপাড়ায় এলাকায় কলেজ ছাত্রীর বড় বোনের ভাড়া বাড়িতে বেড়াতে আসতে বলে। গত শুক্রবার রাতে বোনের বাসায় গিয়ে কলেজ ছাত্রীকে পূনরায় ধর্ষণের চেষ্টা করে। পরে ছাত্রীর চিৎকারে তার বড় বোন ও দুলাভাই এবং আশপাশের লোকজন অমল চন্দ্র দাস ওরফে নয়নকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়। পরে তাকে আটক করে পুলিশ থানায় নিয়ে আসে। সোনারগাঁ থানার ওসি মোরশেদ আলম জানান, এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

"