লালমনিরহাট-৩

নৌকা প্রতীকে এগিয়ে মনোনয়নপ্রত্যাশী স্বপন

প্রকাশ : ২৫ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০

লালমনিরহাট প্রতিনিধি

লালমনিরহাট-৩ (সদর) আসনে আ.লীগের মনোনয়নযুদ্ধে এগিয়ে আছেন জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক ও গোকুন্ডা ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা স্বপন। এবারেই প্রথম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি আ.লীগের পক্ষ থেকে দলীয় মনোনয়নপত্র ক্রয় করেছেন।

জনপ্রিয়তা ও সাংগঠনিক শক্তিতে তিনি তৃণমূল পর্যায়ে ভোটের মাঠে এগিয়ে থাকায় নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে অনেক আগ থেকেই তার পক্ষে প্রচারণা শুরু করেছেন। তৃণমূল পর্যায়ে ইতোমধ্যে মাঠ গুছিয়ে তিনি একটি শক্ত অবস্থান তৈরি করেছেন। এ আসনটি থেকে নৌকা মার্কাকে বিজয়ী করে প্রধানমন্ত্রীকে উপহার দিতে প্রস্তুত দলের নেতাকর্মীরা। তিনি ছাত্র জীবন থেকে আ.লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। আসনটি থেকে আ.লীগের মনোয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন, সাবেক এমপি আবু সাঈদ মো. দুলাল, সাবেক সংরক্ষিত মহিলা এমপি ও জেলা মহিলা আ.লীগের সম্পাদক এ্যাড. সফুরা বেগম রুমীসহ আরো ৩-৪ জন প্রার্থী। কিন্তু এখানে তাদের কোন প্রচার প্রচারণা নেই বললেই চলে। এখন পযর্ন্ত মাঠ পর্যায়ে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন প্রত্যাশী গোলাম মোস্তফা স্বপনের সমর্থনে প্রচার প্রচারণায় সরব থাকলে ও বিএনপি, জাতীয় পার্টিসহ অন্যান্য দল রয়েছে নীরব।এ আসনে বিএনপির শক্ত প্রার্থী সাবেক উপমন্ত্রী অধ্যক্ষ আসাদুল হাবিব দুলু। তিনি ২০০১ সালে এই আসন থেকে প্রথম এমপি নির্বাচিত হন। তারপর থেকে এখানে তিনি দলকে সংগঠিত করে রেখেছেন। এ আসনে বিএনপি থেকে একক প্রার্থী হিসেবে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন তিনি। এর আগে জোটের প্রার্থী হিসেবে গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি নির্বাচিত হলেও বর্তমানে তার জনপ্রিয়তা একেবারেই শুন্যের কোটায়। তার পরেও যদি কেন্দ্র থেকে এই আসনে আ.লীগের প্রার্থীকে মনোনয়ন না দিয়ে জাপার প্রার্থীকে মনোনয়ন দেয়, তাহলে বিএনপি প্রার্থী আসাদুল হাবিব দুলুর পথ অনেকটাই পরিস্কার হয়ে যাবে। গোলাম মোস্তফা স্বপন বলেন, শুধু একজন চেয়ারম্যান হিসেবেই নয়, একজন নাগরিক ও রাজনীতিবিদ হিসেবে এ আসনের অনেক সমস্যা সম্পর্কে অবগত। দল থেকে তাকে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন দিলে তিনি বিপুল ভোটে নির্বাচিত হবেন বলে আশা বাদ ব্যক্ত করেন। তিনি নির্বাচিত হলে এই আসনের সব সমস্যার সমাধানে বিশেষ ভূমিকা পালন করবেন। সেই সঙ্গে জনসেবা ও দারিদ্র বিমোচন ও সমাজ উন্নয়নে সম্পৃক্ত থাকতে চান। এই আসনের অধিকাংশ ভোটারদের অনুরোধেই তিনি আ.লীগ থেকে মনোনয়নপত্র ক্রয় করেছেন। জেলা আ.লীগের একাধিক নেতা বলেন, গোলাম মোস্তফা স্বপন দলকে সুসংগঠিত করার পাশাপাশি একজন চেয়ারম্যান হিসেবে এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ডেও ভূমিকা রেখেছেন। তিনি সাধারণ জনগনের কাছে জনপ্রিয় ও একজন দক্ষ সংগঠক হিসাবে বেশ পরিচিতি লাভ করেছেন। উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে আশা করছি এ আসন থেকে তাকে দায়িত্ব দিলে তিনি বিপুল ভোটে নৌকাকে বিজয়ী করে শেখ হাসিনাকে উপহার দিতে পারবেন।

"