শাহজাদপুরে নির্মাণাধীন বাঁধ এলাকার গাছ ও মাটি লুট

প্রকাশ : ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার ভাটপাড়া গ্রামে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্মাণাধীন বাঁধের অধীগ্রহণের জায়গা থেকে গাছ ও মাটি কেটে সাবার করছে স্থানীয়রা। তারা বলছে ঠিকাদারের লোকজনকে ম্যানেজ করেই তারা এ কাজ করছেন। অপর দিকে ঠিকাদারের লোকজন গাছ ও মাটি কেটে নিয়ে যাওয়ার সত্যতা স্বীকার করলেও উৎকোচ নিয়ে গাছ ও মাটি কেটে নিয়ে যাওয়ার সুযোগ করে দেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেছেন।

এ ব্যাপারে মেসার্স গোলাম রব্বানি কনসট্রাকশনের প্রজেক্ট ম্যানেজার তন্ময় হোসেন বলেন, ‘এ গুলো দেখার এখতিয়ার আমাদের নেই। এ গুলো দেখবে পানি উন্নয়ন বোর্ড। তারা ইচ্ছা করলে এ ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে পারেন। আমরা শুধু আমাদের কোন মালামাল ক্ষতি হলে সে বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে পারব।’ তিনি আরো জানান, কৈজুরি ইউনিয়নের পাঁচিল থেকে ভাটপাড়া পর্যন্ত ৫ কিলোমিটার তার ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স গোলাম রব্বানি কনসট্রাকশন কাজ পেয়েছে। সে অনুযায়ী তারা গত ১ মাস ধরে এখানে কাজ শুরু করেছে। কাজটির জন্য প্রায় ২৮ কোটি টাকা ব্যয় হবে। এডিবির অর্থায়নে এ কাজ পানি উন্নয়ন বোর্ড বাস্তবায়ন করছে। গত সোমবার দুপুরে সরেজমিন ভাটপাড়া গিয়ে দেখা যায়, যে সব বাড়িঘর অধীগ্রহণের মধ্যে পড়েছে। তা সরিয়ে নেয়া হচ্ছে। সেই সঙ্গে ওই সব বাড়িঘরের ভিটার মাটি গভীর করে কেটে নিচ্ছে। এ ছাড়া বড় বড় আম, কড়ই, ইউকালেকটাস সহ বহু মূল্যবান গাছ কেটে নেয়া হচ্ছে। কেনো কেটে নেয়া হচ্ছে তা জানতে চাইলে তারা বলেন, ঠিকাদারের লোকজনকে কিছু উৎকোচ দিয়ে ম্যানেজ করেই তারা এ কাজ করছে। এটা দোষের কিছু না।

এ ব্যাপারে উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) হাসিব সরকার বলেন, ‘অধীগ্রহণ করা সম্পত্তির ওপর থেকে কেবল বাড়িঘর সরিয়ে নিতে পারবে। জমি ও গাছপালার মূল্য নির্ধারন করে তা পরিশোধ করা হয়েছে। তাই, এখান থেকে বিন্দুমাত্র মাটি ও গাছপালা পানিউন্নয়ন বোর্ড ছাড়া আর কেউ কেটে নিতে পারবে না। এটা কেউ করে থাকলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

 

"