কুষ্টিয়া-১

পুনরায় মনোনয়ন পেতে গণসংযোগে এমপি রেজাউল

প্রকাশ : ০৭ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

কুষ্টিয়া-১ (দৌলতপুর) আসনে বর্তমান এমপি রেজাউল হক চৌধুরী স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে নিয়ে মাঠে নেমেছেন। চষে বেড়াচ্ছেন উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের পাড়ামহল্লায়। প্রতিদিনই তিনি নৌকার পক্ষে মানুষের দ্বারে যাচ্ছেন। নিচ্ছেন সকলের খোঁজ খবর। উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে তার পক্ষে প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছেন। করছেন মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা ও পথসভা। প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন বিভিন্ন উন্নয়নের। সম্পন্ন করছেন বিভিন্ন উন্নয়ন কাজ। গত সোমবার এলাকাবাসীর দীর্ঘ দিনের দাবি হোসেনাবাদ থেকে ফিলিপনগর আবেদের ঘাট পর্যন্ত সড়ক উদ্বোধন করেছেন তিনি।

রেজাউল হক এমপি বলেন, ‘দেশরত্ম মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে মনোনয়ন দিলে এলাকার বাকী উন্নয়ন কাজ আমি সম্পন্ন করবো। উপজেলাকে উন্নতির শিখরে পৌছে দিব। আমি গত পাঁচ বছরে যা উন্নয়ন করেছি তা বিগত দিনে কেউ করেনি। সে জন্য এলাকাবাসী আমাকে আবারো এমপি হিসেবে দেখতে চায়।’ তিনি আরো বলেন, ‘উপজেলার ১৪ ইউনিয়ন পরিষদের ১৩ চেয়ারম্যান এবং উপজেলা চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান ও ইউপি সভাপতি ও সম্পাদকরা আমার পক্ষে কাজ করছেন।’

ফিলিপনগর ইউপি চেয়ারম্যান ফজলুল হক বলেন, ‘রেজাউল হকের নেতৃত্বে উপজেলার ১৪ ইউনিয়নেই আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। জনপ্রতিনিধিরা রেজাউল হকের পক্ষে নির্বাচনের মাঠে রয়েছেন। তিনি আমাদের সঙ্গে নিয়ে এলাকার সকল উন্নয়ন করছেন।’

রামকৃজ্ঞপুর ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজ মন্ডল বলেন, ‘আমাদের জনপ্রিয় এমপি মহোদয় আমাদের সকল বিষয়ে সাহায্য করেছেন। তিনি দৌলতপুর উপজেলাকে আধুনিক উপজেলায় পরিণত করেছেন। আমরা সকল ইউপি চেয়ারম্যানরা তার পক্ষে কাজ করছি।’

জেলা পরিষদের সদস্য নাসির উদ্দিন মাস্টার বলেন, ‘উপজেলার বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মহিলা কলেজ ও দৌলতপুর পাইলট হাইস্কুল সরকারিকরণ করা হয়েছে। দৌলতপুরে দৃশ্যমান যা উন্নয়ন হয়েছে তা সবই বর্তমান এমপি রেজাউল হক চৌধুরীর সময়ে হয়েছে।’

রিফায়েতপুর ইউপি চেয়ারম্যান জামিরুল ইসলাম বলেন, ‘তিনি উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নে সাড়ে ৪০০ সোলার প্যানেল এর লাইট স্থাপন করেছেন। রেজাউল হককে নৌকায় মনোনয়ন দিলে দৌলতপুর বাসীর উন্নয়ন ও আগামী নির্বাচনে আসনটি নিশ্চিত হবে।

 

"