ইউপি চেয়ারম্যানের কান্ড!

শাজাহানপুরে রাস্তার ইট তুলে স্থাপনা নির্মাণ, দুর্ভোগে গ্রামবাসী

প্রকাশ : ১৪ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০

শাজাহানপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি

বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলার গোহাইল ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সরকারী রাস্তার ইট তুলে ব্যক্তিগত স্থাপনা নির্মানের অভিযোগ উঠেছে। চেয়ারম্যানের এ কর্মকান্ডে স্থানীয়দের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে। অপরদিকে ঘটনার কয়েকদিন অতিবাহিত হলেও কোন ব্যবস্থা নেয়নি উপজেলা প্রশাসন।

উপজেলা প্রকৌশল অফিস ও স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার গোহাইল ইউনিয়নের চাচাহার গ্রামের দেড় কিলোমিটার রাস্তা পাকা করণের টেন্ডার হয়েছে। কিন্তু বিজয়ী ঠিকাদারকে এখনো কাজের আদেশ দেওয়া হয়নি। রাস্তাটিতে ইটের সোলিং ছিল। সোলিংকৃত ইট থেকে প্রায় ১৪ হাজারের মত ইট গত ৪-৫ দিন পূর্বে তুলে নেয় ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলী আতোয়ার তালুকদার ফজু। সে ইট দিয়ে তিনি জামাদার পুকুর বন্দরে নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের স্থাপনা নির্মাণ করছেন।

একাধিক গ্রামবাসি ও উপজেলা যুবলীগের সিনিয়র সহসভাপতি আলী ইমাম ইনোকী বলেন, ‘নব্য আওয়ামী লীগ নেতা ইউপি চেয়ারম্যান আলী আতোয়ার তালুকদার ফজু’র এ কর্মকান্ডে দলের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন্য হয়েছে। ঘটনাটি শুনে এলাকাবাসী প্রতিবাদমুখর হয়ে উঠেছে। বিষয়টি আমি নিজে উপজেলা প্রকৌশলীকে জানালেও এখনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।’ একাধিক গ্রামবাসি অভিযোগ করে বলেন, ইট তুলে নেয়ায় বৃষ্টির কারণে কদমাক্ত হয়েছে রাস্তাটি। রিক্সা-ভ্যানে ও মোটর সাইকেলে ওই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করা যাচ্ছে না। এতে তারা চরম দূভোগে পড়েছেন স্থানিয়রা। এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা প্রকৌশলী মো. ইসমাইল হোসেন মুঠোফোনে জানান, ঘটনাটি সত্য। চেয়ারম্যানের সঙ্গে কথা হয়েছে, সে ইট ফেরত দেবে। কোন আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ইট ফেরত দিলে তো আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার দরকার পড়ে না।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ইউপি চেয়ারম্যান আলী আতোয়ার তালুকদার ফজুর মোবাইল ফোনে জানান, ভাটায় নতুন ইট বের না হওয়ায় আমার জরুরী প্রয়োজনে ওই কাজের ঠিকাদারের সঙ্গে কথা বলে রাস্তা থেকে ১০ হাজার ইট তুলে এনেছি। ঠিকাদার রাস্তার কাজ শুরু করলে তাকে ইট কিনে দিবো। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের সত্ত্বাধিকারী সিরাজুল হক রিক্তা জানান, উপজেলা প্রকৌশল অফিস এখনো কাজের আদেশ দেয়নি। লোক মারফত শুনতে পেরেছি ওই রাস্তা থেকে ১৪ হাজারের মত ইট তুলে নিয়ে গেছে। বিষয়টি উপজেলা প্রকৌশলীকে জানালে সে আমাকে জানিয়েছে কাজের আদেশ দেওয়ার পর আপনাক ইট বুঝিয়ে দেওয়া হবে।

 

"