বাউফলে ডায়রিয়া ও নিউমোনিয়ার প্রকোপ

হাসপাতালে বাড়ছে আক্রান্ত শিশুর সংখ্যা

প্রকাশ : ১২ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০

বাউফল (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি

পটুয়াখালীর বাউফলের বিভিন্ন এলাকায় ডায়রিয়া ও নিউমোনিয়ার প্রকোপ দেখা দিয়েছে। ফলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বাড়ছে এ রোগে আক্রান্ত শিশুর সংখ্যা। আবহাওয়া পরিবর্তনের কারণে রোগের প্রাদুর্ভাব বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

সরেজমিনে গত বুধবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডায়রিয়া ও নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত প্রায় অর্ধশত শিশু চোখে পড়ে। পাশের বিভিন্ন এলাকা থেকে রোগী আসার দৃশ্য দেখা যায়। ৫০ শয্যার হাসপাতালের সবগুলো বেডে ডায়রিয়া ও নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত শিশু। কোনো বেড খালি নেই। এদের মধ্যে অধিকাংশই এক বছরের কম বয়সী। একই সময় কয়েক রোগী কেবলমাত্র ব্যবস্থাপত্র নিয়েই হাসপাতাল ছাড়ছেন।

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, হাসপাতালে ভর্তি শিশুদের মধ্যে রয়েছে উপজেলার দাশপাড়া গ্রামের ইব্রাহীম, একই গ্রামের হালিমা, তাসনিম, ধানদী গ্রামের আয়শা, ছাবিদ, জুনায়েত, চাঁদকাঠি গ্রামের আলামিন, এশা মণি, শৌলা গ্রামের রফিকুল, ফাহিম, তুষার, ইয়াসিন, দশমিনা উপজেলার বগুড়া গ্রামের মরিয়ম, আবদুল্লাহ, চন্দ্রদ্বীপ গ্রামের তরিকুল, তাসিম, ইউসুফ, বিলবিলাস গ্রামের ইশান, মদনপুরের আলিফ, ধানদী গ্রামের দেড় মাস বয়সী নাবিলা, নাজিরপুরের রায়হান, মাহিন, চন্দ্রপাড়ার তুহিন, জান্নাতুল, নওমালার আমেনা, মমিনপুরের হাসিব, সোহাগসহ অর্ধশতাধিক শিশু। এ নিয়ে গত তিন দিনে প্রায় শতাধিক নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত শিশুর চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে বলেও জানা যায়।

নাম প্রকাশ করতে অনিচ্ছুক কয়েকজন অভিভাবক জানান, হাসপাতালের চিকিৎসক তাদের বাহির থেকে ওষুধ কেনার পরামর্শ দিয়েছেন। এদিকে বগা, কনকদিয়া, কালাইয়া, নাজিরপুর, কেশবপুরের বিভিন্ন চরাঞ্চলে ডায়রিয়া ও নিউমোনিয়ায় আক্রান্তের খবর পাওয়া যাচ্ছে। আবহাওয়া পরিবর্তনে রোগের প্রকোপ দেখা দেওয়ার মুহূর্তে হাসপাতালে পর্যাপ্ত ওষুধপত্র সংকটের দেখা দিয়েছে।

এ ব্যাপারে বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. প্রশান্ত কুমার সাহা জানান, আবহাওয়া পরিবর্তনের কারণে রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। এআরআই, সিবিএ ও নিউমোনিয়ায় আক্রান্তদেরই কেবল ভর্তি করা হচ্ছে। তবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এখন পর্যন্ত কোনো রোগীকে অন্যত্র রেফার করার প্রয়োজন হয়নি। এখানে পর্যাপ্ত ওষুধপত্র নেই, তা ছাড়া সব ওষুধ সরকারিভাবে দেওয়া সম্ভবও না। কিছু ওষুধ বাহির থেকে ব্যবস্থা করতে হবে বলে জানান তিনি।

 

"