গাইবান্ধা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে

জমাট বাঁধা সার নিয়ে বিপাকে গাইবান্ধার ডিলাররা

প্রকাশ : ১২ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০

গাইবান্ধা প্রতিনিধি

বাফার গুদামের জমাট বাঁধা ইউরিয়া সার নিয়ে গাইবান্ধার ডিলাররা বিপাকে পড়েছেন। কৃষকরা এই জমাট বাঁধা সার ক্রয়ে অনীহা প্রকাশ করছে। এই বিষয়ে সার ডিলাররা বাফার কর্তৃপক্ষকে অভিযোগ করেও সুফল মেলেনি। এর প্রতিকারের দাবিতে বাংলাদেশ ফার্টিলাইজার অ্যাসোসিয়েশন, জেলা শাখার উদ্যোগে গতকাল বৃহস্পতিবার গাইবান্ধা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এ সময় সার উত্তোলন বন্ধ করার হুশিয়ারি দেন ডিলাররা।

অ্যাসোসিয়েশনের জেলা শাখার সম্পাদক সুদেব কুমার চৌধুরী লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করেন, গাইবান্ধা জেলার বাফার গুদামে বিপুল পরিমাণ ইউরিয়া সার দীর্ঘদিন মজুদ রয়েছে। জেলার কৃষকরা জমাট বাঁধা ইউরিয়া ব্যবহারে অভ্যস্ত নয়। কৃষকদের অনীহার কারণে তারা জমাট বাঁধা সার বিক্রয় করতে পারছেন না। এ নিয়ে জটিলতার সৃষ্টি হলে বিসিআইসি’র পরিচালক (অর্থ) হাইউল কাইউম গাইবান্ধার বাফার গুদাম পরিদর্শন করে ডিলারদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। তিনি ডিলারদের জমাট বাঁধা সার সরবরাহ নেওয়ার জন্য অনুরোধ করেন। ভবিষ্যতে জমাট বাঁধা সার আর করা হবে না বলে আশ্বস্ত করেন। পরে জমাট বাঁধা সার মেশিনে ভেঙে ডিলারদের সরবরাহ দেওয়া হয়। কিন্তু কৃষকরা এই সার ক্রয় না করায় ডিলারদের গুদামে এখনো অবিক্রিত অবস্থায় পড়ে রয়েছে। ফলে ডিলারদের আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে ডিলাররা জানান, এ অবস্থা চলতে থাকলে তাদের পক্ষে কোনোক্রমেই জমাট বাঁধা সার উত্তোলন সম্ভব হবে না।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ফার্টিলাইজার অ্যাসোসিয়েশন জেলা সহসভাপতি আবদুল মজিদ লেবন, আবদুস সবুর সরকার, এ কে মজিদুল আলম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহফুজার রহমান, সদস্য গাজী শরিফুল ইসলাম, সৈয়দ কামরুল ইসলাম ইমরান, সংগঠনের সাবেক জেলা সভাপতি এ কে এম জিলুর রহমান রাজু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আলম রিপন প্রমুখ।

 

"