পার্বতীপুরের স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ ৫০ হাজার টাকায় রফা

প্রকাশ : ১০ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০

ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি

দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার পল্লীতে তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্থানীয়ভাবে বিষয়টি ৫০ হাজার টাকায় রফা হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটে উপজেলার ৯ নম্বর হামিদপুর ইউনিয়নে।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ৯ নম্বর হামিদপুর ইউনিয়নের তৃতীয় শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে একই ইউনিয়নের ভবেশ চন্দের ছেলে নরেশ (৫৮) গত সোমবার দুপুরে ওই স্কুলছাত্রীর বাড়িতে যায়। এ সময় নরেশ চন্দ্র মেয়েটিকে একা পেয়ে ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করে।

অন্যদিকে ওই ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা সদস্য মোসা. রেবেকা (৪৫) ও তার স্বামী জবেদ আলী (৪৮) ধর্ষক নরেশ পালের সঙ্গে গোপনে সমঝোতা করে সালিস ডাকে। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টায় হামিদপুর ইউনিয়ন পরিষদে ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে সালিস বসে। এ সময় ওই স্কুলছাত্রীর বাবাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ৫০ হাজার টাকা দেওয়ার কথা বলে তাদের বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। ইউপি সদস্য ঘটনাটিকে বাড়াবাড়ি না করার জন্য ওই মেয়ের বাবাকে সতর্ক করেন।

অন্যদিকে এ বিষয় নিয়ে কথা বললে ওই মেয়ের বাবা গতকাল মঙ্গলবার জানান, আমি গরিব মানুষ। যারা অন্যায় করেছে আমি তাদের বিচার চেয়েছিলাম কিন্তু বিচার না পেয়ে আমার মেয়ের ইজ্জতের মূল্য ৫০ হাজার টাকা দিতে চেয়ে বিষয়টি নিষ্পত্তির কথা বলে। আমি আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কাছে আমার মেয়ের সম্ভ্রমহানির ন্যায়বিচার চাই।

"