শেরপুরে ইউনিয়ন পরিষদ ও হাটের জায়গা দখল

প্রকাশ : ১২ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০

শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি

বগুড়ার শেরপুরের খানপুর ইউনিয়ন পরিষদ ও কয়েরখালি হাটের জায়গা দীর্ঘদিন ধরে দখল করে রেখেছে স্থানীয় একটি মহল। ইউনিয়ন পরিষদ থেকে তিনবার নোটিস দেওয়া হলেও দখল ছাড়ছে না স্থানীয় ওই প্রভাবশালী।

স্থানীয়রা জানান, উপজেলার খানপুর ইউনিয়ন পরিষদ ও কয়েরখালি হাটের জায়গা গত ৭ বছর ধরে দখল করে দোকান ঘর নির্মাণ করে ব্যবসা করে আসছে স্থানীয় প্রভাবশালীরা। স্থানীয় খানপুর পশ্চিমপাড়া গ্রামের মৃত বীরবক্সের ছেলে আশরাফ আলী, আমির কর্মকারের ছেলে আশানুর রহমান, ওসমান গনির ছেলে ফজলুল হক, মজিবর রহমানের ছেলে আবদুল হাকিম, সিরাজ হোসেনের ছেলে ফরহাদ হোসেন, ফজর আলীর ছেলে মোস্তাফিজুরসহ মছের আলীর ছেলে আহাম্মাদ আলী ওই স্থান দখল করে আছেন। তাদের অবৈধ দখল থেকে হাটের জায়গা উদ্ধারের জন্য বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম রাঞ্জু পরিষদ থেকে কয়েক বার নোটিস দেওয়া হলেও তারা সেখানে এখনো ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবর অভিযোগ দিলে অজ্ঞাত কারণে প্রশাসন কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। এ নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে নানা প্রশ্নের উদয় হয়েছে।

খানপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম রাঞ্জু জানান, কয়েরখালি হাটের জায়গা দখলে অভিযুক্ত ৬০ জনের নাম উল্লেখ করে ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মো. আসাদুজ্জামান সরকার ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. লিটন সরকারের কাছে গত ২৩ মে একটি লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়। কিন্তু অভিযোগের প্রায় আড়াই মাস অতিক্রম হলেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি।

এ ব্যাপারে শেরপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. লিটন সরকার অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, মৌখিকভাবে দখলদারদের হাটের জায়গা দখলমুক্ত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তারা জায়গা দখলমুক্ত করেনি। কয়েক দিনের মধ্যে উচ্ছেদ অভিযানের মাধ্যমে হাটের জায়গা দখলমুক্ত করা হবে।

"