জনপ্রতিনিধির রাস্তা নির্মাণ জমি দখল করে

প্রকাশ : ১০ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০

সিংড়া (নাটোর) প্রতিনিধি

নাটোরের সিংড়ায় জনপ্রতিনিধি কর্তৃক জোরপূর্বক রাস্তা নির্মাণকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। জমির মালিকদের অনুমতি ছাড়াই স্থানীয় নেতাদের সহযোগিতায় রাস্তা নির্মাণ নিয়ে বিভক্ত হয়ে পড়েছে গ্রামবাসী। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার ডাহিয়া ইউনিয়নের বাঁশবাড়িয়া গ্রামে।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছে, রাতাল-বিয়াশ রাস্তার পাশে অবস্থিত বাঁশবাড়িয়া গ্রাম। এ গ্রামের লোকসংখ্যা প্রায় দুই হাজার। গ্রামে প্রবেশে একাধিক রাস্তা রয়েছে। বিশেষ করে গ্রামের উত্তর পাশ দিয়ে একটি রাস্তা ২০০৪ সালে করা হয়। সে রাস্তা দিয়ে যাতায়াত অনেকে করে। সম্প্রতি গ্রামের দক্ষিণ পাশ দিয়ে হাজি জসিম উদ্দিনের পৈতৃক জমিতে রাস্তা নির্মাণ করেন স্থানীয় ইউপি সদস্য কামাল হোসেন। জমির মালিক হাজি জসিম উদ্দিনের দুই পুত্র এনায়েত করিম রাঙা, ইবারত ও তার বোন মাজেদা বেওয়া জানান, তাদের অনুমতি ছাড়াই রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে। এখানে তাদের নিষেধ মানা হয়নি।

এনায়েত করিম রাঙা জানান, তাদের পৈতৃক সম্পত্তিতে পাঁচ ভাই বোনের জায়গা রয়েছে। এর মধ্য তিনজনের জায়গার ওপর দিয়ে ইউপি সদস্য কামাল রাস্তা করেছে। তিনি আরো বলেন, আমি চাকরির কারণে ঢাকায় অবস্থান করি। তাছাড়া আমার ভাই-বোন নিষেধ করলেও তাদের কোনো কথা মানা হয়নি। জোরপূর্বক রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে।

সাবেক ইউপি সদস্য মজিবর রহমান জানান, গ্রামের উত্তরদিক দিয়ে নির্ধারিত রাস্তা রয়েছে। তাদের জায়গা অর্থাৎ জমির আইল দিয়ে কিছু মানুষ যাতায়াত করত। বর্তমানে রাস্তা হওয়ায় জমির মালিক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। ইউপি সদস্য কামাল হোসেন বলেন, রাস্তাটি এলাকার জনগণের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এ ব্যাপারে স্থানীয় জনগণ, নেতাকর্মীর সঙ্গে বৈঠক করে শ্রমিক দিয়ে মাটি ভরাট করে নির্মাণ করা হয়েছে। প্রতিদিন বহু লোকজন যাতায়াত করে আসছে। তবে রাস্তা নির্মাণের পূর্বে জমির মালিকদের থেকে অনুমতি নিয়েছেন কি না, এ বিষয়ে তিনি মুখ খোলেননি। এ বিষয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম জানান, ইউপি সদস্য জোরপূর্বক রাস্তা নির্মাণ করেছে। এ বিষয়ে আমাকে অবহিত করা হয়নি।

"