নন্দীগ্রামে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে চলছে চিকিৎসাসেবা

প্রকাশ : ০৯ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০

নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি

সংস্কারের অভাবে বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার সদর ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ কেন্দ্রের ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। ঝুঁকি নিয়েই সেখানে চিকিৎসাসেবা দেওয়া হচ্ছে। যেকোনো সময় ভবনটি ধসে পড়ে প্রাণহানির ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন অনেকেই।

সূত্রে জানা গেছে, ১৯৮০ সালের দিকে এ এলাকার মানুষের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অধিদফতর ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ কেন্দ্রের ভবনটি নির্মাণ করে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, স্বাস্থ্যকেন্দ্রের ওই ভবনের বিভিন্ন স্থানে বড় ধরনের ফাটল ধরেছে। ফাটল ধরেছে আবাসিক ভবনটিতেও। সেই আবাসিক ভবনটিতে প্রাণহানির আশঙ্কায় কেউ সেখানে আর থাকে না। ছাদ থেকে খসে পড়ছে পলেস্তারা। বৃষ্টির পানি চুয়ে চুয়ে পড়ছে। এ ঝুঁকিপূর্ণ ভবনেই চলছে চিকিৎসাসেবা।

স্থানীয় ফোকপাল গ্রামের মিজানুর রহমান জানান, প্রতিদিন নারী-পুরুষ, শিশু এই ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ কেন্দ্রে এসে চিকিৎসাসেবা নেয়। দ্রুত স্বাস্থ্যকেন্দ্রটি সংস্কার বা নতুন ভবন নির্মাণ করা না হলে এখানে চিকিৎসাসেবা ব্যাহত হবে।

এ বিষয়ে সদর ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ কেন্দ্রের উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার ফজলুর রহমান বলেন, শুধু রোগী নন, আমিও ঝুঁকির মধ্যে রয়েছি। স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ও আবাসিক ভবনটি একেবারেই ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। তবে আবাসিক ভবনে প্রাণহানির আশঙ্কায় থাকা হয় না। যেকোনো মুহূর্তে ধসে পড়ে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। বিষয়টি আমরা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি।

"