জেলা পর্যায় সাফল্যে উচ্ছ্বসিত শিক্ষার্থীরা

প্রকাশ : ২০ জুলাই ২০১৮, ০০:০০

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

বোড পর্যায়ে গত বছরের তুলনায় ফল বিপর্যয় দেখা দিয়েছে অধিকাংশ বোর্ডে। তবে জেলা পর্যায়ে অনেক কলেজই ভালো ফল করেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে একযোগে সারা দেশে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল ঘোষণা করা হয়। প্রতিনিধিদের পাঠান খবরÑ

নরসিংদী : নরসিংদীর আবদুল কাদির মোল্লা সিটি কলেজ এবারো সেরাদের মাঝে সেরা হয়েছে। কলেজটি থেকে এ বছর পরীক্ষায় ৮০৪ শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে সবাই কৃতিত্বের সঙ্গে উত্তীর্ণ হয়েছে। কলেজের অধ্যক্ষ দৈনিক প্রতিদিনের সংবাদ পত্রিকার পাঠক ফোরাম নরসিংদী জেলা শাখার সভাপতি ড. মশিউর রহমান মৃধা শতভাগ পাসসহ ২৭১ শিক্ষার্থী জিপিএ-৫ পাওয়ায় সন্তোস প্রকাশ করেন।

গাইবান্ধা : গাইবান্ধা শহরের ৩টি শীর্ষ স্থানীয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মধ্যে আহম্মদ উদ্দিন শাহ্ শিশু নিকেতন স্কুল ও কলেজ শীর্ষে রয়েছে। কলেজের মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ২৯২, পাস করেছে ২৮৭। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫২ এবং পাসের হার ৯৮.২৯। অপরদিকে গাইবান্ধা সরকারি কলেজে মোট পরীক্ষার্থী সংখ্যা ৮৪৪, পাস করেছে ৭৪০। জিপিএ ৫ পেয়েছে ৪৮ এবং পাসের হার ৮৭.৬৮। গাইবান্ধা সরকারি মহিলা কলেজের মোট পরীক্ষার্থী সংখ্যা ৫৫১, পাস করেছে ৪২৮ এবং জিপিএ ৫ পেয়েছে ৫ ও পাসের হার ৭৭.৬৮। এছাড়া বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে রহমান নগর কারিগরি স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে অংশ নেয়া ৫২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৫১ জন পরীক্ষার্থী পাস করেছে, পাসের হার ৯৮.০৮।

ঝিনাইদহ : ঝিনাইদহ ক্যাডেট কলেজ থেকে শতভাগ পাসের ধারা অব্যাহত রেখেছে। মোট ৫১ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৪৪ জন জিপিএ-৫ অর্জন করেছে। অন্যদিকে ঝালকাঠিতে এবারো আলিম পরীক্ষায় জিপিএ-৫ প্রাপ্তিতে শীর্ষে এনএস কামিল মাদ্রাসা। মাদ্রাসাটি থেকে ১২৯ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে ১২৬ জন উত্তীর্ণ হয়েছে। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৭ জন।

ঝালকাঠি সরকারি মহিলা কলেজ পরীক্ষায় ৬০৯ জনে অংশ নিয়ে ৪০৬ জন উত্তীর্ণ হয়েছে। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে পাঁচজন। ঝালকাঠি কুতুবনগর আযিযিয়া আলিম মাদ্রাসা থেকে আলিম পরীক্ষায় ১২ জন অংশ নিয়ে ৯ জন উত্তীর্ণ হয়েছে। সদর উপজেলার নওপাড়া ডিএসআই ফাজিল মাদরাসা থেকে আলিম পরীক্ষায় ২৯ জন অংশ নিয়ে ২৭ জন উত্তীর্ণ হয়েছে।

পলাশ (নরসিংদী) : নরসিংদীর পলাশ উপজেলার পলাশ থানা সেন্টাল কলেজে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় শতভাগ পাস করেছে। এ বছর কলেজটি থেকে ২৬৩ জন পরীক্ষায় অংশ নেয়। তাদের মধ্যে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে ৮৮ জন, ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ থেকে ৮৩ জন ও মানবিক বিভাগ থেকে ৯২ জন। জিপিএ ৫ পেয়েছে ৪ জন।

ফুলবাড়িয়া (ময়মনসিংহ) : ফুলবাড়ীয়া উপজেলার ২১টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে জিপিএ-৫ পেয়েছে মাত্র ১৭ জন। উপজেলার ১৩ টি কলেজ থেকে ২ হাজার ৭৬৭ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন। তার মধ্যে উত্তীর্ণ হয় ১ হাজার ৮৫৪ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৫ জন। ৮টি মাদ্রাসা থেকে ৪১৭ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৪০৭ জন উত্তীর্ণ হয়েছে, তার মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন।

হাজীগঞ্জ (চাঁদপুর) : চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ উপজেলায় এইচএসসি পরীক্ষায় ৮ জন জিপিএ-৫ পেয়েছেন। তার মধ্যে হাজীগঞ্জ মডেল কলেজ থেকে ৫ জন এবং হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ থেকে ৩ জন। ফলের ভিত্তিতে হাজীগঞ্জ মডেল পাইলট হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজ প্রথম অবস্থানে রয়েছে। তাদের পাসের হার শতকরা ৮৯.৮৩ ভাগ। উপজেলার অন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে কাকৈরতলা জনতা কলেজ ৮৫.৫৬, হাজীগঞ্জ মডেল কলেজ ৮৩.৬৭, ধড্ডা মোয়াজ্জেম হোসেন চৌধুরী ডিগ্রি কলেজে ৮০.৯২, নাসিরকোট ডিগ্রি কলেজ ৬৮.৯৭, হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ ৬৬.১৩, বলাখাল মুকবল আহমেদ ডিগ্রি কলেজ ৫৬.৪৯ এবং দেশগাঁও ডিগ্রি কলেজ ৩৩.৭৫ ভাগ পাস করেছে।

আদমদীঘি (বগুড়া) : রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এবার এইচএসসি পরীক্ষায় প্রকাশিত ফলে সাধারণ ও কারিগরি শাখার ১০টি কলেজের মধ্যে ৪টি কলেজ থেকে মোট ১২ জন পরীক্ষার্থী জিপিএ-৫ পেয়েছে। প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, সান্তাহার সরকারি কলেজে থেকে ৫ জন, আদমদীঘি হাজী তাছের আহমেদ মহিলা কলেজে থেকে ৪ জন, আদমদীঘি কারিগরি কলেজ থেকে ২ জন ও সান্তাহার শহীদ আহসানউনুল হক ডিগ্রি কলেজ থেকে ১ জন জিপিএ-৫ পেয়েছে।

"