লাইসেন্স ছাড়াই চলছে স’মিল

প্রকাশ : ১৩ জুলাই ২০১৮, ০০:০০

উল্লাপাড়া (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় সরকারি বন বিভাগের তাগিদ সত্ত্বেও লাইসেন্স ছাড়াই চলছে স’মিলগুলো। এলাকায় একের পর এক নতুন স’মিল গড়ে উঠছে।

বন বিভাগের কর্মকর্তা সূত্রে জানা যায়, গোটা উপজেলায় ৬০টিরও বেশি স’মিল চলছে লাইসেন্স ছাড়া। বন বিভাগ থেকে লাইসেন্স করতে দফায় দফায় তাগিদের পরেও স’মিল মালিকেরা তা আমলে নিচ্ছেন না। পাশাপাশি পৌর এলাকায় চালানো যাবে না এ বিধি নিষেধ না মেনেই সাতটি স’মিল চালানো হচ্ছে। নতুন করে আরো একটি বসছে।

উপজেলায় প্রায় ৭৫টি স’মিল আছে। যার সঠিক সংখ্যা বন বিভাগের কাছেই নেই। উপজেলার কয়ড়া, মোহনপুর, গয়হাট্টা, সিমলা, পূর্বদেলুয়া, ধামাইলকান্দি, ধরইল, হরিণচড়া, বড়হর, অলিপুর, সিরাজগঞ্জ রোড, জনতার হাট, সলংগা এলাকায় স’মিল রয়েছে। উপজেলা সদরের বাইরে মফস্বল এলাকায় আরো এক দুটি করে নতুন স’মিল বসানো হচ্ছে। এগুলো লাইসেন্স ছাড়াই বসানো হচ্ছে বলে জানা যায়। বড়হর ইউনিয়নে চারটি বাজার মিলে ৯টি স’মিল চালু আছে। এ দিকে পৌরসভা এলাকার দেড় যুগ আগে থেকেই সাতটি স’মিল চলছে। শ্রীকোলা এলাকায় নতুন আরো একটি স’মিল বসানো হচ্ছে।

বিভিন্ন এলাকার বেশ কয়েকজন স’মিল মালিক বলেন, স’মিল চালানোয় বন বিভাগ থেকে লাইসেন্স অবশ্যই করতে হয়। কিন্তু অনিহার কারণে তারা লাইসেন্স করেনি বলে জানান। স্থানীয় বন বিভাগ থেকে মাঝে মধ্যে তাগিদ দেওয়া হলেও করবেন জানিয়ে তা আর করা হয়নি।

পৌর এলাকায় নতুন করে স’মিল বসাচ্ছেন মনিরুল ইসলাম। তিনি জানেন না যে পৌর এলাকায় স’মিল বসানো যাবে না। এ ছাড়া তার পরিচালনায় অপর দুটি স’মিল রয়েছে, যেগুলোর লাইসেন্স নেই।

উপজেলা বন কর্মকর্তা মো. শফিকুল ইসলাম জানান, তার জানা মতে বিগত সময়ে হাতে গোনা ৫-৭টি স’মিল মালিক প্রথম মিল বসানো কালে লাইসেন্স করলেও পরে তা আর নবায়ন করেননি। আমাদের পক্ষ থেকে লাইসেন্স করার বিষয়ে বারবার স’মিল মালিকদের তাগিদ দেওয়া হয়েছে। এর পাশাপাশি গত দেড় বছর সময়কালে উপজেলা প্রশাসন থেকেও লাইসেন্স করার বিষয়ে স’মিল মালিকদের লিখিতভাবে অবহিত করা হয়। এরপরেও একজন স’মিল মালিকও লাইসেন্স আবেদনই করেননি। তিনি আরো জানান, পৌরসভা এলাকায় কোনো অবস্থাতেই কোনো স’মিল চালানো যাবে না।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আরিফুজ্জামান জানান, বন বিভাগ থেকে এসব বিষয়ে তিনি জেনে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবেন।

"