হালুয়াঘাটে বাঁশ ও গাছের ডালে বিদ্যুতের ঝুঁকিপূর্ণ সংযোগ

প্রকাশ : ১০ জুলাই ২০১৮, ০০:০০

মাজহারুল ইসলাম মিশু, হালুয়াঘাট (ময়মনসিংহ)

ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলার নড়াইল ইউনিয়নের অধিকাংশ গ্রামে আবাসিক ও বাণিজ্যিক বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয়েছে বাঁশের খুঁটি ও গাছের ডালে সঙ্গে বেঁধে। ফলে ইউনিয়নের রাস্তা, বসতবাড়ি, ফসলি জমিসহ বিভিন্ন স্থানে ঝুলে আছে পল্লী বিদ্যুতের সার্ভিস তার। আর এই ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় হাল চাষ, চলা-ফেরাসহ বসবাস করছে স্থানীয়রা। দীর্ঘদিন থেকে এ অবস্থা চললেও সমাধানের কোনো উদ্যোগ নেই সংশ্লিষ্ট বিভাগের।

স্থানীয়রা বলেছেন, সঠিক সময়ে বিদ্যুতের খুঁটি না পাওয়ায় বঁাঁশ ও গাছের ডাল ব্যবহার করেই চালিয়ে নিতে হচ্ছে। তবে সংশ্লিষ্ট বিভাগের প্রকৌশলী বলছেন, বিদ্যুৎ গ্রাহকরা সিন্ডিকেট করে একে অপরকে লাইন দেওয়ার ফলে বাঁশের খুটি ব্যবহার হচ্ছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, কুমুরিয়া, খরমা ও আলিশাহ বাজারসহ অন্যান্য স্থানগুলোতে প্রয়োজনের তুলনায় খুঁটি কম বসানোর ফলে বিদ্যুৎ সংযোগের তার বিভিন্ন স্থানে গাছের ওপর ঝুলে রয়েছে। অনেক স্থানে তার বাঁশের খুঁটি দিয়ে উঁচু করে রাখা রয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, প্রায় তিন হাজারের অধিক গ্রাহক পল্লী বিদ্যুতের আওতায় রয়েছে। সঠিক খুঁটি না পাওয়ায় বঁাঁশ ও গাছের ডাল ব্যবহার করা হচ্ছে। ফলে প্রায়ই সংযোগ তারের সঙ্গে গাছের ডালের সংস্পর্শে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে ও আগুন ধরে যায়। এ ছাড়া ঘরের চালের খুব কাছ দিয়ে ও গাছের ডালে তার ঝুলিয়ে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয়েছে। যেকোনো সময় বড় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা করছে এলাকাবাসী।

আবাসিক বিদ্যুৎ গ্রাহক হারেজ আলী বলেন, অনেক সময় দায়ে পড়ে এগুলো নিজেদের উদ্যোগেই সাময়িকভাবে মেরামত করে নিতে বাধ্য হচ্ছেন। চলতি বর্ষা মৌসুমে একটু দমকা বাতাসেই ভেঙে যাচ্ছে বাঁশের খুঁটিগুলো। খুঁটি ভেঙে পরে থাকে দিনের পর দিন।

বাঘমার মসজিদ মোড়ের মুদি দোকানদার আকিকুল ইসলাম বলেন, সংযোগ নেওয়ার পর থেকেই বাঁশের খুটি দিয়ে চলতে হচ্ছে। অনেকটা বিপদের মধ্যেই বসবাস করছি।

জানতে চাইলে হালুয়াঘাট অঞ্চলের পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির সহকারী জুনিয়র প্রকৌশলী মো. মোজাম্মেল হোসেন জানান, বিদ্যুৎ গ্রাহকরা সিন্ডিকেট করে একে অপরকে লাইন দেওয়ার ফলে বাঁশের খুটি ব্যবহার হচ্ছে। নিয়মানুসারে নির্দিষ্ট খুঁটি থেকেই সংযোগ প্রদান করা হয়। এলাকাগুলোতে বহুবার গ্রাহকদের সতর্কতা ও জরিমানাও করা হয়েছে। অচিরেই ঝুলে থাকা তার মেরামতের আওতায় আনা হবে বলে জানান এই কর্মকর্তা।

"