ভোলায় এসিডে দগ্ধ তানজিমের মৃত্যু

প্রকাশ : ০৯ জুলাই ২০১৮, ০০:০০

ভোলা প্রতিনিধি

ভোলায় প্রায় দুই মাস আগে এসিডের শিকার স্কুলছাত্রী তানজিম আক্তার মালার (১৬) মৃত্যু হয়েছে। গত শনিবার রাত সাড়ে ৯টায় রাজধানীর সিটি হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের প্রধান অধ্যাপক মো. শহিদুল বারী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তানজিম ভোলা সদর উপজেলার উত্তর দিঘলদী ইউনিয়নের মো. হেলাল রাঢ়ীর মেয়ে। জানা যায়, গত ১৪ মে দিবাগত রাতে নিজ ঘরে ঘুমন্ত তানজিম (১৬) ও তার ছোট বোন মারজিয়ার (৭) ওপর এসিড ছুড়ে মারেন মহব্বত হাওলাদার নামের এক তরুণ। এ সময় স্বজনরা তাকে দ্রুত উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করান। পরে তার অবস্থার অবনতি হলে রাজধানীর সিটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এসিডে তানজিমের শ্বাসনালি পুড়ে যাওয়ার পাশাপাশি দুই চোখ, এক কান ও নাকের খানিকটা গলে যায়। এ ছাড়াও তার মুখ থেকে বুকের নিচ পর্যন্ত গভীরভাবে দগ্ধ হয়। চিকিৎসকরা জানান তানজিমের শ্বাসনালিসহ শরীরের ২৪ শতাংশ দগ্ধ হয়েছিল। পরদিন তানজিমের মা ভোলা সদর মডেল থানায় সন্দেহ ভাজন একই বাড়ির ফারুকের ছেলে রাজিবের নামে মামলা করেন। পরে পুলিশ তদন্ত করে মহব্বত হাওলাদার নামে এক তরুণকে গ্রেফতার করেন। জানা যায়, ঘটনার দুই মাস আগে মুঠোফোনে ভুল নম্বরের মাধ্যমে মহব্বত হাওলাদার (১৯) নামে ওই তরুণের সঙ্গে তানজিমের পরিচয় হয়। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। কিন্তু কয়েকদিন পর ওই যুবক জানতে পারে তানজিমের সঙ্গে আরো দুইজনের প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। এতে সে তানজিমের ওপর ভীষণ ক্ষিপ্ত হয়ে এসিড নিক্ষেপে করে। এ সময় এসিডে ঝলসে যায় তানজিম ও তার ছোট বোন মার্জিয়াও। পরে পুলিশ সন্দেহ ভাজন আসামি মহব্বত হাওলাদারকে গ্রেফতার করেন। গ্রেফতারকৃত মহব্বত হাওলাদার ১৬৪ ধারায় জবানবন্দী দিয়ে এসিড মারার কথা স্বীকার করেন। এখন তিনি কারাগারে আছেন।

"