ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ময়লার স্তূপ

প্রকাশ : ০৯ জুলাই ২০১৮, ০০:০০

আশরাফুল আলম, সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ)

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার মোগরাপাড়া চৌরাস্তা ও কাঁচপুর মোড়ে ময়লা আবর্জনার স্তূপের কারণে মহাসড়কের যানজট এবং পরিবেশের মারাত্মক ক্ষতি হচ্ছে। ময়লা আবর্জনা সরাতে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রীর নির্দেশও কার্যকর করছে না স্থানীয় প্রশাসন। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের গুরুত্বপূর্ণ এ দুইটি স্থানে ময়লা আবর্জনার স্তূপে সড়ক সরু হয়ে যাওয়ার কারণে প্রতিদিন দীর্ঘ যানজট সৃষ্ট হচ্ছে। দূষিত হচ্ছে এলাকার পরিবেশ।

জানা যায়, স্থানীয়ভাবে ময়লা আবর্জনা ফেলার কোনো নির্দিষ্ট স্থান না থাকার কারণে উপজেলার মোগরাপাড়া ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের মানুষ ও মোগরাপাড়া চৌরাস্তার কাঁচাবাজারসহ বিভিন্ন পণ্যের বিক্রেতারা প্রতিদিন মহাসড়কের ঢালুতে ময়লা আবর্জনা ফেলে। ফলে যানবাহন চলাচলে বিঘœ সৃষ্টি হয়। বিশেষ করে চট্টগ্রাম, রাঙ্গামাটি, কক্সবাজার, কুমিল্লা, নোয়াখালী, ফেনী, চাঁদপুরসহ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক ব্যবহার করে যেসব যানবাহন ঢাকা থেকে বের হয় সেসব যানবাহন প্রায় প্রতিদিনই দীর্ঘ যানজটের কবলে পড়ে। অপরদিকে, কাঁচপুর মোড়ে ময়লা আবর্জনা ফেলে কাঁচপুর ইউনিয়নের মানুষ ও স্থানীয় কাঁচাবাজারের ব্যবসায়ীরা। সড়ক বিভাগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, প্রতিদিন এ মহাসড়কে দক্ষিণ-পূর্ব অঞ্চলের ১৪টি জেলার বাস, ট্রাক, মাইক্রোবাস, প্রাইভেট কার ও অ্যাম্বুলেন্সসহ প্রায় ৩০ হাজার যানবাহন চলাচল করে। এছাড়া চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, রাঙ্গামাটিসহ পার্বত্য অঞ্চলের কয়েক হাজার দূরপাল্লার যাত্রীবাহী বাস এ সড়কে চলাচল করে। এ সড়কের পাশ দিয়ে সোনারগাঁ উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের মেঘনাঘাট এলাকায় কর্মরত বিভিন্ন শিল্প কারখানার শ্রমিক ও স্থানীয় পিরোজপুর, চেঙ্গাকান্দি, নাগেরগাঁও, জৈনপুর, ছয়হিস্যা, কান্দারগাঁও, নয়াগাঁও, আষারিয়ারচর গ্রামের প্রায় ১৫ হাজার মানুষ প্রতিদিন হেঁটে, রিকশা, বেবী, ব্যাটারিচালিত সিএনজি ও টেম্পো দিয়ে যাতায়াত করে। দূষিত বর্জের স্তূপে কুকুর, বিড়াল, কাকসহ বিভিন্ন পশুপাখি দিন-রাত খাবারের সন্ধানে ঘুরে বেড়ায়। তাছাড়া পচা আবর্জনা দূষিত বর্জ্য মারীখালী নদীতে গিয়ে মিশে নষ্ট হচ্ছে পানি ও ছড়াচ্ছে বিভিন্ন রোগব্যাধি। সড়কে অবস্থানরত ট্রাফিক পুলিশের সদস্যরা জানান, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মোগরাপাড়া চৌরাস্তা ও কাঁচপুর মোড়ে প্রতিদিন যানজটের প্রধান কারণ মহাসড়কের ওপর এ ময়লা আবর্জনার স্তূপ। স্থানীয় পিরোজপুর গ্রামের বাসিন্দা সাদেক হোসেন বলেন, মনে হয় দেশের গুরুত্বপূর্ণ এ মহাসড়কের ওপর ময়লা আবর্জনার স্তূপ অপসারণ কিংবা পরিষ্কার রাখার কোনো সংস্থা নেই। সোনারগাঁ ইউএনও শাহীনুর ইসলাম জানান, প্রশাসনের পক্ষ থেকে স্থানীয় ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসীদের বারবার নিষেধ করার পরও তারা ওই স্থানে ময়লা ফেলে মানুষের দুর্ভোগ বাড়াচ্ছেন। ময়লা আবর্জনা সরাতে সওজ কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করার পরও তারা কথা শুনছে না।

"