কালীগঞ্জে প্রজেক্ট থেকে ১৫০ মণ মাছ চুরির অভিযোগ

প্রকাশ : ০৮ জুলাই ২০১৮, ০০:০০

লালমনিরহাট প্রতিনিধি

পারিবারিক ও জমি-জমার বিরোধের জেরে কালীগঞ্জ উপজেলায় একটি মাছের প্রজেক্ট থেকে ১৫০ মণ মাছ চুরির অভিযোগ পাওয়া যায়। পরে চুরিকৃত মাছ পিকআপ ভ্যানে করে যাওয়ার সময় চালক মোর্শেদ আলম (২৮) সহ প্রায় সাড়ে ছয় মণ মাছ উদ্ধার করেন প্রজেক্টের মালিক আলহাজ শাহ আলম। এ ব্যাপারে ১৫ জনকে আসামি করে কালীগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। গত শুক্রবার বিকেলে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার চন্দ্রপুর ইউনিয়নের চাপারহাট বত্রিশহাজারী এলাকায় এ চুরির ঘটনা ঘটে। গতকাল শনিবার দুপুরে আটককৃত পিকআপ চালক মোর্শেদ আলমকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়। চুরিকৃত মাছের আনুমানিক মূল্য পৌনে ১৩ লাখ টাকা বলে ক্ষতিগ্রস্ত চাষির দাবি। মামলার বিবরণ ও মালিক সূত্রে জানা যায়, মাছের প্রজেক্ট মালিকের সঙ্গে দীর্ঘদিন থেকে তার সৎ ভাই আফাজ উদ্দিন, মাহা আলম ও রুবেল মিয়ার পারিবারিক ও জমি-জমার বিরোধ চলছিল। এর জের ধরে আলহাজ শাহ আলম ব্যবসায়িক কাজে নীলফামারীর ডিমলায় থাকায় সুযোগে গত শুক্রবার বিকেলে সৎ ভাইদের নেতৃত্বে ৪০-৫০ জন লোক দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে খেতা জাল দিয়ে প্রজেক্ট থেকে ১৫০ মণ মাছ তুলে। পরে চুরিকৃত মাছ কয়েকটি পিকআপ ভ্যানে করে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় খবর পেয়ে প্রজেক্ট মালিক উপজেলার বুকশুলা সেতু এলাকা থেকে মাছসহ একটি পিকআপ আটক করে। এ ব্যাপারে কালীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মকবুল হোসেন জানান, অভিযোগ পাওয়ার পর পরই মামলাটি রেকর্ড করা হয়েছে। আসামিদের ধরার চেষ্টা চলছে।

"