৪০০ টাকার প্রশিক্ষণে ১০০০ আদায়

প্রকাশ : ১০ জুন ২০১৮, ০০:০০

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি

বরগুনার আমতলী পোস্ট অফিসের ই-সেন্টার প্রশিক্ষকের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত টাকা আদায় ও আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

প্রশিক্ষক নূর মোহাম্মাদ সরকারি নিয়ম ভেঙে ৪০০ টাকার স্থালে ১০০০ টাকা নিয়ে তা আত্মসাৎ করেছেন।

ফলে পোস্ট ই-সেন্টারের কার্যক্রমের সুবিধা থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন প্রশিক্ষণার্থীরা।

সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়া কার্যক্রমের অংশ হিসেবে ‘একসেস টু ইনফরমেশন’ কর্মসূচির আওতায় এই প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

অভিযোগ স্বীকার করে প্রশিক্ষক নূর মোহাম্মদ বলেন, ‘আমাদের নিয়োগ বেসরকারি, তাই বাড়তি নিচ্ছি।’

তথ্যানুসন্ধানে জানা গেছে, আমতলী পোস্ট অফিসের ই-সেন্টারের প্রশিক্ষক হিসাবে ২০১৩ সালে নিয়োগ পান উপজেলার পশ্চিম ঘটখালী গ্রামের মো. ইউছুফ মিয়ার ছেলে নূর মোহাম্মাদ। নিয়োগ পাওয়ার পর প্রথম ব্যাচে ৩৮ জন, দ্বিতীয় ব্যাচে ৪৫ জন, তৃতীয় ব্যাচে ৫২ জন প্রশিক্ষণার্থী ভর্তি হয়। এ জন্য সেন্টারের লজিস্টিক সাপোর্ট, কম্পিউটার, ল্যাপটপ, আসবাব, ঘর সবই সরকারিভাবে দেওয়া হয়েছে। সরকারি বিধান অনুযায়ী, প্রশিক্ষণের জন্য ৪০০ টাকা নেওয়ার কথা। প্রশিক্ষক নূর মোহাম্মাদ জনপ্রতি ১০০০ টাকা নিচ্ছেন বলে এই প্রতিবেদকের কাছে স্বীকার করেছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ই-সেন্টারের আয়ের ৮০ ভাগ প্রশিক্ষককে আর বাকি ২০ ভাগ সরকারি কোষাগারে জমা হওয়ার বিধান রয়েছে। কিন্তু আদায়কৃত অতিরিক্ত টাকা নূর মোহাম্মাদ একাই আত্মসাৎ করছেন।

জানতে চাইলে পটুয়াখালী ডাক বিভাগের ডেপুটি পোস্ট মাস্টার জেনারেল (ডিপিএমজি) মো. কবির আহমেদ জানান, অভিযোগ জেনেছি, তদন্ত করে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

"