পাসপোর্টযাত্রীর পায়ুপথে মিলল ৭ সোনার বার

প্রকাশ : ০৯ জুন ২০১৮, ০০:০০

বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি

যশোরের বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে ভারতে পাচারের সময় সাত পিস (৭০০ গ্রাম) সোনার বারসহ লাভলু ব্যাপারী (২৫) নামে এক পাসপোর্টযাত্রীকে আটক করেছেন কাস্টম কর্মকর্তারা। গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৭টার সময় ওই যাত্রী চেকপোস্ট কাস্টমস-ইমিগ্রেশনের আনুষ্ঠানিকতা শেষে ভারতে প্রবেশ করার সময় তার শরীর তল্লাশি করে পায়ু পথ থেকে স্বর্ণের বারগুলো উদ্ধার করা হয়।

আটক লাভলু শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার বিকে নগর গ্রামের আবদুল মান্নান ব্যাপারীর ছেলে। বেনাপোল কাস্টম হাউসের ডেপুটি কমিশনার জাকির হোসেন বলেন, সোনার একটি বড় চালান চেকপোস্ট দিয়ে ভারতে পাচার হবে, এ ধরনের গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিকেল থেকে চেকপোস্টে কাস্টমসের নজরদারি বাড়ানো হয়। সন্ধ্যার দিকে কাস্টমস-ইমিগ্রেশনের আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে ভারতে প্রবেশ করার সময় লাভলুর গতিবিধি সন্দেহ হওয়ায় তাকে আটক করা হয়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সোনার বার বহনের বিষয়টি অস্বীকার করে। পরে ক্লিনিকে নিয়ে এক্স-রে করে সোনার বার নিশ্চিত হয়ে তাকে জুস ও পানি খাইয়ে পায়ুপথ থেকে তা বের করা হয়। আটক সোনার বারের ওজন ৭০০ গ্রাম। যার মূল্য ৩২ লাখ টাকা। জব্দকৃত সোনা কাস্টমস গোডাউনে জমা দিয়ে এ ব্যাপারে বেনাপোল পোর্ট থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, গত মঙ্গলবার সকালে একই স্থান থেকে ১ কেজি ৩০০ গ্রাম সোনাসহ মহিউদ্দিন ভূঁইয়া নামে এক পাচারকারীকে আটক করেন শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত সার্কেলের সদস্যরা।

এদিকে, শুক্রবার সকালে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে ভারত যাওয়ার পথে রঞ্জন সাহা (৩৬) নামে এক ভারতীয় পাসপোর্টযাত্রীকে ৩৫০ গ্রাম ওজনের সোনার পাতসহ আটক করা হয়েছে। শুল্ক গোয়েন্দা কর্মকর্তারা তার শরীর তল্লাশি করে বিশেষ কৌশলে লুকানো প্যান্টের বেল্টের মধ্য থেকে ওই সোনার পাত উদ্ধার করেন। যার আনুমানিক বাজার মূল্য ১৬ লাখ টাকা। আটক রঞ্জন সাহা ভারতের কলকাতার বেহালা থানার ৩৪ নম্বর ভূপেন নগর রোডের অনিল সাহার ছেলে।

বেনাপোল শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত সার্কেলের উপপরিচালক সাইফুর রহমান জানান, আটক রঞ্জন সাহাকে বেনাপোল পোর্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। উদ্ধার করা সোনা বেনাপোল শুল্ক গুদামে জমা দেওয়া হয়েছে।

"