ধর্ষণের মামলা না নিয়ে বাদীকে হুমকি

মেলান্দহের সেই ইন্সপেক্টর প্রত্যাহার

প্রকাশ : ২২ মে ২০১৮, ০০:০০

জামালপুর প্রতিনিধি

পঞ্চম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনার মামলা না নিয়ে উল্টো নির্যাতিত পরিবারের সদস্যদের হুমকি দেওয়ার অভিযোগে মেলান্দহ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) টিপু সুলতানকে ক্লোজড করা হয়েছে। অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়ায় জেলা পুলিশ সুপার মো. দেলোয়ার হোসেন গত রোববার রাতে তাকে জামালপুর পুলিশ লাইনে ক্লোজড করেন। অভিযুক্ত ইন্সপেক্টরের বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্ত শুরু হয়েছে।

জানা গেছে, মেলান্দহ উপজেলার ঘোষেরপাড়া ইউনিয়নের দরিদ্র পরিবারের পঞ্চম শ্রেণির ওই ছাত্রীর গৃহশিক্ষক ছিলেন একই ইউনিয়নের নাগেরপাড়া গ্রামের আবদুল হাইয়ের ছেলে মনোয়ার হোসেন (২৭)। গৃহশিক্ষক মনোয়ার হোসেন গত ১২ মে সকালে ওই শিক্ষার্থীকে স্কুলে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বের করে আনে। পরে তাকে স্কুলে না নিয়ে তার নিজের বাড়িতে নিয়ে যায়। সন্ধ্যায় ছাত্রীর পরিবারের পক্ষ থেকে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে গৃহশিক্ষক মনোয়ার জানান, তার বাড়িতে কম্পিউটার শিখছে সে। ওই রাতেই মনোয়ার ওই ছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণ করে। পরদিন সকালে অসুস্থ অবস্থায় তাকে বাড়িতে রেখে যায়।

নির্যাতনের ঘটনাটি শিশু তার পরিবারকে জানালে তারা স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে বিচার দেন। কিন্তু তিনি কোনো সহযোগিতা করেননি। পরে গত ১৬ মে মেলান্দহ থানায় মামলা দিতে গেলে থানার পরিদর্শক তদন্ত টিপু সুলতান মামলা না নিয়ে উল্টো নিগৃহীতার বাবাকে হুমকি দেয়। এ ছাড়া ইন্সপেক্টর টিপু সুলতান প্রভাবশালী যৌন নির্যাতনকারীর পক্ষ নিয়ে অসুস্থ ধর্ষিতাকে হাসপাতালেও যেতে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করেন।

বিষয়টি মেলান্দহ উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় জামালপুর পুলিশ সুপারের নজরে এলে তিনি টিপু সুলতানকে পুলিশ লাইনে ক্লোজড করার নির্দেশ দেন। মেলান্দহ থানার ওসি আজিজুর রহমান বলেন, ঘটনার দিন তিনি ছুটিতে ছিলেন। ইন্সপেক্টর টিপু সুলতান ছিলেন ভারপ্রাপ্ত অফিসার ইনচার্জের দায়িত্বে। ছুটি থেকে ফিরে তিনি ওই মামলাটি রুজু করেন। জেলা পুলিশ সুপার মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, শিশু ধর্ষণের মতো বরর্বোচিত ঘটনার মামলা না নিয়ে ইন্সপেক্টর টিপু সুলতান অপরাধ করেছেন। তাই তাকে ক্লোজড করে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছেন।

"