জালিয়াতি করে মামলা : অতঃপর

প্রকাশ : ১৬ মে ২০১৮, ০০:০০

চট্টগ্রাম ব্যুরো

চট্টগ্রামে জালিয়াতি করে মামলা করার দায়ে সারা দিন কোর্টহাজতে থাকার পর মুক্তি পেয়েছেন বাদী। এর আগে গতকাল মঙ্গলবার সকালে চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম মো. শফি উদ্দিন বাদীকে কোর্টহাজতে বন্দি রাখার আদেশ দেন। রণজিৎ ভৌমিক চট্টগ্রামের হাটহাজারী থানার নন্দীর হাটের ব্রাহ্মণপাড়ার বাসিন্দা মৃত বিমল ভৌমিকের ছেলে।

আসামি পক্ষের আইনজীবী আসাদুজ্জামান খান বলেন, রণজিত ভৌমিক জালিয়াতির মাধ্যমে একটি চুক্তিপত্র তৈরি করেছেন। উক্ত চুক্তিপত্র দিয়ে ৭০ হাজার টাকা পাওনা দাবি করে গত বছরের ২৪ মে চট্টগ্রামের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দন্ডবিধির ৪০৬, ৪২০, ৫০৬ ধারায় একটি মামলা করেন। বিচারক ওই দিন মামলা খারিজ করে দেন। এর ৬ দিন পর তিনি উক্ত তথ্য গোপন করে একই চুক্তিপত্র দিয়ে একই বছরের ১ জুন মহানগর হাকিম আদালতে মামলা করেন। মামলাটি আদালত গ্রহণ করে আমার মক্কেল সুজন দত্ত ও শিমুল দত্তের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে আদালত। চলতি বছরের ৮ মার্চ পুলিশ আদালতের পরোয়ানা মূলে আমার মক্কেলদেরকে গ্রেফতার করে। একই দিন তারা জামিনে মুক্তি পায়। গতকাল অভিযোগ গঠন বিষয়ে শুনানি শেষে আসামি সুজন দত্ত ও শিমুল দত্তকে মামলার দায় থেকে অব্যাহতি দেন আদালত। পাশাপাশি জালিয়াতি ও আদালতের সঙ্গে প্রতারণার দায়ে বাদী রণজিত ভৌমিককে কোর্টহাজতে পাঠানোর আদেশ দিয়েছিলেন বিচারক। পরে বিকেলে রণজিত ভৌমিককে ছেড়ে দিতে পুলিশকে আদেশ দেন বিচারক।

আদালতের বেঞ্চ সহকারী মো. ওসমান বলেন, এই ঘটনায় মূলত বাদীর আইনজীবীর ভুলের কারণে মামলার নথিপত্র সঠিক ছিল না। পরে বিষয়টি জানতে পেরে বাদীকে মুক্তি দিতে আদেশ দিয়েছেন বিচারক।

"