দেলদুয়ারে লেবু চাষে অভাবনীয় সাফল্য

প্রকাশ : ১২ মে ২০১৮, ০০:০০

দেলদুয়ার (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি

গত বছরের বন্যায় টাঙ্গাইলের দেলদুয়ারে লেবুচাষিরা ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছিলেন। প্রায় ১৭০ হেক্টর লেবু বাগান পানির নিচে তলিয়ে যায়। অনেকে এ ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে না পেরে লেবু চাষ থেকে সরে দাঁড়ান। তবে যারা সুদিনের অপেক্ষায় ছিলেন তারা সেই ক্ষতিটাকে এখন কাটিয়ে উঠে হাটবাজারে লেবু বিক্রি করে বেশ লাভবান হচ্ছেন। উপজেলায় লেবুর বাজারে চড়া মূল্য থাকায় চাষিদের মুখে হাসি ফুটেছে। প্রায় ১০ থেকে ১২ বছর আগে থেকে উপজেলার ফাজিলহাটি ইউনিয়নের পুটিয়াজানীর বিস্তৃত এলাকা জুড়ে কৃষক তাদের জমিতে লেবু চাষ করে আসছেন। প্রতিদিন বেলা ১০টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত লেবুর হাট বসে পুটিয়াজানী বাজারে। ওই হাটে দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে পাইকাররা আসেন লেবু কিনতে। চলতি মৌসুমে লেবুর বাজারে চাহিদা বেশি হওয়ায় হাটে ক্রেতাদের সমাগম বেশি দেখা যাচ্ছে। চাষিদের দেওয়া তথ্যে মতে, ১০০ লেবু ২৫০-৩০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আর প্রতি বস্তা লেবু বিক্রি হচ্ছে ৩ হাজার ৮০০ টাকা থেকে ৪ হাজার ২০০ টাকা পর্যন্ত। প্রতিটি বস্তায় ১৬০০ থেকে ১৮০০ লেবু থাকে। আর লেবুর ধরন অনুযায়ী প্রতিটি লেবু ৫ টাকা থেকে সাড়ে ৮ টাকা হারে বিক্রি হচ্ছে।

লেবু চাষি নুরুল ইসলাম জানান, বন্যায় লেবু বাগানের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। সে জন্য মৌসুমের শুরুতেই লেবুবাজার মূল্য বেশি। এ ছাড়া এ অঞ্চলের লেবু সারা দেশে বেশ জনপ্রিয়তা রয়েছে। বছরে লেবু বিক্রি করে ২ লাখ টাকা আয় করেন তিনি। শওকত মিয়া জানান, এ বছর লেবুর দাম তুলনামূলক বেশি হওয়ায় তিনি বেজায় খুশি। তবে রমজানের শুরুতে লেবুর দাম আরো বৃদ্ধি পেতে পারে বলেও তার অভিমত। আবদুর রহমান জানান, লেবুর চারা একবার রোপণ করলে ৩ বছর পর থেকে পূর্ণ ফল দেওয়া শুরু করে। একটি লেবুগাছ প্রায় ১৭ বছর পর্যন্ত ফল দেয়। তিনি ১ হাজার শতাশং জায়গা জুড়ে লেবু চাষ করেছেন। বছরে তিনি ৩ লাখ টাকা আয় করেন লেবু বিক্রি করে।

 

"