সরকারি জমি দখল করে ভবন নির্মাণ

প্রকাশ : ১২ মে ২০১৮, ০০:০০

আবদুর রউফ, ধামরাই (ঢাকা)

ঢাকার ধামরাই উপজেলার সরকারি খাস জমি দখল করে ভবন নির্মাণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে উপজেলার খাগুরতা গ্রামে কয়েক হাজার একর ফসলি জমির পানি নিষ্কাশন বন্ধ হয়ে গেছে। এ ছাড়া সরকারি গাছ কেটে সাবাড় করারও অভিযোগ উঠেছে এক প্রভাবশালীর বিরুদ্ধে। এ বিষয়ে এলাকাবাসী স্থানীয় প্রভাবশালী বাহার উদ্দিনের বিরুদ্ধে ইউএনও বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ফসলি কয়েক হাজার একর জমির পানি নিষ্কাশন বন্ধ করে সেতুর পূর্বপাশে মাটি ভরাট করে ভবন তৈরির জন্য মাটি ফেলেন বাহারউদ্দিন। স্থানীয়রা বাধা দিলেও তিনি কর্ণপাত করেননি। বরং ভবন তৈরি করার জন্য রড-সিমেন্ট এনে কাজ শুরু করেছেন।

এ বিষয়ে বাহারউদ্দিন বলেন, আমি জায়গাটা ক্রয় করে নিয়েছি। ভবন তৈরির আগে পানি নিষ্কাশনের জন্য কালভার্ট নির্মাণ কওে দেব। আমি কারো জমির পানি বন্ধ করিনি। খাসজমির বিষয়ে তিনি বলেন, সড়কের পাশের জায়গাতো একটু আকটু খাস জায়গা থাকতে পারে, সেটা মাপলে বোঝা যাবে। রাস্তার পাশের একটা গাছ কেটেছি। কারণ, গাছের কারণে আমার জায়গায় মাটির গাড়ি ঢুকতে অসুবিধা হয়। ধামরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আবুল কালাম বলেন, অভিযোগ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সহকারী কমিশনার (ভূমি) নাহিদ হাসানকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। সঠিক তদন্ত করে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নাহিদ হাসান বলেন, ইউএনও স্যার বলার সঙ্গে সঙ্গে ভূমি সহকারী ইছাক ভূঁইয়াকে সরেজমিন পাঠিয়ে কাজ বন্ধ করে দেওয়ার জন্য বলেছি। ভূমি সহকারী ইছাক ভূঁইয়া বলেন, কাজ বন্ধ করে ইউএনও স্যারের কাছে দুই পক্ষকে হাজির হতে বলেছি।

 

"