টেকনাফে বৃষ্টিতে ভেসে গেছে কোটি টাকার লবণ

প্রকাশ : ২০ এপ্রিল ২০১৮, ০০:০০

কক্সবাজার প্রতিনিধি

হঠাৎ কাল বৈশাখীতে তলিয়ে গেছে কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলা বিভিন্ন স্থানের লবণের মাঠ। ভেসে গেছে প্রায় কোটি টাকার লবণ। এতে প্রায় কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে লবণ চাষীদের দাবি। গত বুধবার ভোর ৫টার দিকে কয়েক ঘণ্টার বৃষ্টিতে প্রক্রিয়াধীন লবণ মাঠের এই ক্ষয়ক্ষতি হয়। তবে টেকনাফ ইউএনও বলছেন, শাহ পরীর দ্বীপে ৬ বছর পর প্রায় ২ হাজার একর জমি লবণ মাঠ চাষের আওতায় আনা হয়েছে। তাই লবণ উৎপাদন নিয়ে সংকটে পড়ার কোনো আশঙ্কা নেই।

টেকনাপ উপজেলার হোয়াইক্যং, হ্নীলা, টেকনাফ সদর ও সাবরাং ইউনিয়নের হাজার হাজার একর জমিতে লবণ উৎপাদন হয়। দেশে লবণের চাহিদা এক তৃতীয়াংশ টেকনাফ উপজেলা থেকেই পূরণ করা হয়। শীতের শুরুতে লবণ মাঠ তৈরি শুরু হলেও এখন চলছে ভরা মৌসুম। এ সময় হঠাৎ কাল বৈশাখী বৃষ্টিতে সব লন্ডবন্ড হয়ে গেছে। টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের আলী খালী এলাকার লবণ চাষী নুরুল কবির জানান, আগের তুলনায় লবণ চাষ এমনিতে কম, গতকাল (বুধবার) সকালে বৃষ্টিতে সব লবণ পানিতে তলিয়ে গেছে। এতে আনুমানিক প্রায় কোটি টাকার ক্ষয় ক্ষতি হয়েছে।

এদিকে বৃষ্টি শেষ হওয়ার পরপরই পুনরায় মাঠে কাজ করার প্রস্তুতি নিচ্ছে চাষীরা। লবণ চাষীরা বলেন, বৃষ্টি হলেও এবার মৌসুম ভাল থাকলে লবণ উৎপাদন করে তা ক্ষতি কাটিয়ে উঠা যাবে বলে মনে করছেন। সাবরাং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নূর হোসেন বলেন, গত বছর লবণের ন্যায্যমূল্য পাওয়ায় চাষীরা এ বছরও তাদের সম্বল বিক্রি করে লবণ উৎপাদনে নামে। কিন্তু ভোরে হঠাৎ বৃষ্টির কারণে সাবরাং ইউনিয়নের চাষীদের কোটি টাকার ওপরে ক্ষতি হয়েছে। টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রবিউল হাসান বলেন, লবণ উৎপাদন মৌসুমে হঠাৎ বৃষ্টির কারণে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। কি পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তা তাৎক্ষণিক জানা যায়নি।

"