ইসলামপুরে ধানের ক্ষেতে ব্লাস্ট উল্লাপাড়ায় বিএলবি সংক্রমণ

প্রকাশ : ১৭ এপ্রিল ২০১৮, ০০:০০

ইসলামপুর (জামালপুর) ও উল্লাপাড়া (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি

চলতি বোরো মৌসুমে জামালপুরের ইসলামপুরে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে ছত্রাকজনিত রোগ ব্লাস্ট। উপজেলায় ব্রি-২৮ জাতের ধান ক্ষেতে গত বছরের মতো এবারো এ রোগ দেখা দিয়েছে। এদিকে সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার বিশাল আবাদী মাঠে বছরের প্রধান আবাদ ইরি ধানে ব্যাকটেরিয়াজনিত বিএলবি (ব্যাকটেরিয়া লিফ ব্রাইট) রোগ দেখা দিয়েছে।

জামালপুর ইসলামপুর প্রতিনিধি জানান, উপজেলায় চলতি মৌসুমে ১৭ হাজার ৫শ’ হেক্টর জমিতে বোরো ধান চাষ করা হয়েছে। ছত্রাক সংক্রামণ প্রসঙ্গে কৃষি অফিস বলছে, আমরা সতর্কতার জন্য কৃষকদের সঠিক সময়ে পরামর্শ ও লিফলেট বিতরণ করেছি যাতে এরোগ ছড়াতে না পারে। তবে কৃষকরা বলছে ভিন্ন কথা, কৃষি অফিস থেকে কোন অফিসার এখনো আসেনি আমাদের কোন দিক নির্দেশনা দেয়নি। এতে আমরা চরম হতাশায় রয়েছি।

পলবান্ধা ইউনিয়নের সিরাজাবাদ গ্রামের কৃষক অনুপদ্দি ডিহিদার জানান, দুই দিন আগে ক্ষেতে গিয়ে দেখি যে, আমার ধান ক্ষেতের ধানের শীষ মরে যাচ্ছে। আজ দেখতাছি যে আমার পুরো ধান ক্ষেতের ধানের শীষ চিটা হয়ে গেছে। কৃষি অফিস অফিস থেকে আমাদের কে যদি সঠিক সময়ে সঠিক কোন পরামর্শ দিত তাহলে আমার এতবড় ক্ষতি হতো না। প্রায় একই কথা বলেন কৃষক তাজল, আলমগীর, মিনারা, পৌরসভার নটারকান্দা গ্রামের রহমত আলীসহ অনেক। সরেজমিনে পাথর্শী ইউনিয়নের হাড়িয়াবাড়ী গ্রামে এর সত্যতা পাওয়া যায়।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা (অতিরিক্ত দায়িত্ব) মতিয়ার রহমান কৃষকদের অভিযোগ অস্বীকার বলেন, আমরা সঠিক সময়ে কৃষকদের সঠিক পরামর্শ ও লিফলেট বিতরণ করেছি। যাতে এ ব্লাস্ট রোগ ধান ক্ষেতে ছড়াতে না পারে।

এদিকে সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া প্রতিনিধি জানান, উপজেলার বিশাল এক আবাদী মাঠে বছরের প্রধান আবাদ ইরি ধানে ব্যাকটেরিয়াজনিত বিএলবি (ব্যাকটেরিয়া লিফ ব্রাইট) রোগ দেখা দিয়েছে। সদর উল্লাপাড়া ইউনিয়নের নাগরৌহা গ্রামের আবাদী মাঠে দ্রুত এ রোগ ছড়িয়ে পড়ছে। গত দিন সাতেক হলো এ রোগ দেখা দিয়েছে। প্রথমে ধানের পাতার উপরিভাগ থেকে মরে শুকিয়ে উঠছে।

কৃষক মো. রেজা, করিম মিয়া জানান, তারা এ রোগের কারণে কোন ঔষধ ব্যবহার করবেন তা নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্বে পড়েছে। কৃষি অফিস কোন অবস্থাতেই এটি ছত্রাক জনিত রোগ নয় জানিয়ে তাদের পরামর্শ মোতাবেক ঔষধ ব্যবহারের কথা জোর দিয়ে বলছে।

উল্লাপাড়া উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মো. ইউসুফ মিয়া বলেন, কীটনাশক দোকানীরা ভুল পরামর্শ দিয়ে ছত্রাকজনিত ঔষধ ব্যবহারে পরামর্শ ও উৎসাহ দিচ্ছে। তিনি ইতিমধ্যেই ৩০ থেকে ৩৫ জন কৃষককে এক অনুষ্ঠানে বিএলবি রোগ ও এ প্রতিরোধে ঔষধ ব্যবহারে পরামর্শ এমনকি ঔষধও লিখে দিয়েছেন।

 

"