লাকসাম-মনোহরগঞ্জ সড়ক

১৬ ফিটে উন্নীত সড়কে দুই উপজেলাবাসীর স্বস্তি

প্রকাশ : ১৩ এপ্রিল ২০১৮, ০০:০০

আকবর হোসেন, মনোহরগঞ্জ (কুমিল্লা)

১২ ফিট থেকে ১৬ ফিট করা রয়েছে লাকসাম-মনোহরগঞ্জের ১১ কিলোমিটার সড়ক। যোগাযোগের ক্ষেত্র সহজ ও জনবান্ধব করার লক্ষ্যে বিদ্যুৎ, জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় কমিটির সভাপতি ও কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সভাপতি মোঃ তাজুল ইসলাম এমপির গৃহীত পরিকল্পনার অংশ হিসেবে এই সড়ক সম্প্রসারণ করা হয়েছে। ৮ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত এই সড়ক দুই উপজেলার ১৯টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার সাড়ে ৭ লক্ষাধিক মানুষ উপকৃত হবে।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, রাস্তা সম্প্রসারণের ফলে লাকসাম ও মনোহরগঞ্জ উপজেলায় সড়ক যোগাযোগের নতুন নেটওয়ার্কের আওতায় এসেছে। এতে প্রতিটি গ্রাম থেকে স্বল্প সময়ে যেকোনো জায়গায় যাতায়াত করা সহজ হয়ে গেছে। এতে করে দুই উপজেলার মধ্যে যাতায়াতে মাত্র ১৫ মিনিট সময় লাগবে।

লাকসাম উপজেলা প্রকৌশলী খোন্দকার গোলাম শওকত জানান, স্থানীয় সংসদ সদস্য মোঃ তাজুল ইসলাম এমপির পরামর্শ ও নির্দেশনা অনুযায়ী লাকসাম থেকে আশিরপাড় পর্যন্ত রাস্তাটি পুনঃপাকাকরণ এবং ১৬ ফিটে উন্নীতকরণের পরিকল্পনা গ্রহণ করি। এর পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৬-১৭ অর্থবছরে লাকসাম অংশের ৬.৫ কিলোমিটার রাস্তার কাজ বরাদ্দের সাড়ে ৪ কোটি টাকায় সম্পন্ন করা হয়েছে।

অপরদিকে সংসদ সদস্য মোঃ তাজুল ইসলামের ঐকান্তিক প্রচেষ্টার কথা উল্লেখ করে মনোহরগঞ্জ উপজেলা প্রকৌশলী মোহাম্মদ আল আমিন সরদার জানান, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে প্রায় সাড়ে ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে মনোহরগঞ্জ থেকে আশিরপাড় পর্যন্ত ৪.৫ কিলোমিটার রাস্তা পুনঃপাকাকরণ ও ১২ থেকে ১৬ ফিটে উন্নীতকরণ সম্পন্ন হয়েছে।

সড়কে চলাচলকারী একাধিক গাড়িচালক বলেন, ‘আগে এই রাস্তা দিয়ে গাড়ি চালাতে খুব কষ্ট ছিল। এখন খুব সহজেই গাড়ি চালাতে পারছি। রাস্তাটি নির্মাণ করায় আমরা খুবই খুশি।’ যাত্রীরা বলেন, ‘এ রাস্তা দিয়ে চলাফেরায় আমাদের অনেক কষ্ট হতো। এখন খুবই আরামে চলাফেরা করতে পাচ্ছি। অনেক সময়ও বেঁচে যায়।’ এজন্য তারা লাকসাম-মনোহরগঞ্জ আসনের সংসদ সদস্য মোঃ তাজুল ইসলাম এমপির প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

 

"