এসিল্যান্ডের স্বাক্ষর জালিয়াতি

ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা বরখাস্ত

প্রকাশ : ১২ এপ্রিল ২০১৮, ০০:০০

গোমস্তাপুর (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি

চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে সহকারী কমিশনার (ভূমি) আসিফ আহমেদের স্বাক্ষর জাল করে শতাধিক নামজারি (খারিজ) করার অভিযোগে পার্বতীপুর ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা শুকুরুদ্দিনকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের ১ জানুয়ারি আকস্মিকভাবে ওই ভূমি অফিস পরিদর্শনে গিয়ে তৎকালীন সহকারী কমিশনার (ভূমি) আসিফ আহমদ ও বর্তমান কানুনগো হাবিবুর রহমান নামজারি (খারিজ) সংক্রান্ত বিষয়ে কিছু অনিয়ম লক্ষ করেন। প্রায় ১ বছর পর গত বছরের ১৪ ডিসেম্বর পুনরায় ওই ভূমি অফিস পরিদর্শনে গিয়ে আরো কিছু খারিজ সংক্রান্ত অনিয়ম ধরা পড়ে। পরে বিষয়টি কানুনগো তদন্তপূর্বক সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকে প্রতিবেদন দাখিল করেন। এই প্রতিবেদন পেয়ে তৎকালীন সহকারী কমিশনার (ভূমি) আসিফ আহমদ তাকে বরখাস্তের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট সুপারিশ করেন। এর প্রেক্ষিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ অভিযুক্ত ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা শুকুরুদ্দিনকে শোকজ নোটিস প্রদান করে। শোকজ নোটিসের জবাব আশানুরূপ না হওয়ায় গত ৩ এপ্রিল জেলা প্রশাসক তাকে সাময়িক বরখাস্তের আদেশ প্রদান করেন। তার বিরুদ্ধে গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ও ১৩ মার্চ দুটি বিভাগীয় মামলা দায়ের করা হয়েছে। যা গোমস্তাপুর ইউএনও শিহাব রায়হান তদন্ত করবেন বলে জানা গেছে। এদিকে, ভুক্তভোগীরা তার বিরুদ্ধে দুদকে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

প্রাথমিক তদন্ত কর্মকর্তা কানুনগো হাবিবুর রহমান জানান, এখন পর্যন্ত ওই ভূমি অফিসে এসিল্যান্ডের স্বাক্ষর জাল করে খারিজ করা ১০৭টি নামজারি চিহ্নিত করা হয়েছে। তার হাতে করা আরো কিছু খারিজ কেস খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এছাড়া তার এ অপকর্মগুলোতে সহায়তার অভিযোগে অফিস পিয়ন আবদুল হান্নানকে বদলি করা হয়েছে। অভিযুক্ত ভূমি কর্মকর্তা শুকুরুদ্দিনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি তার বিরুদ্ধে দায়ের করা বিভাগীয় মামলা ও বরখাস্তের বিষয়টি স্বীকার করেন।

বর্তমান সহকারী কমিশনার (ভূমি) মিন্টু বিশ্বাস জানান, এ ঘটনার সূত্র ধরে অন্যান্য ইউনিয়ন ভূমি অফিসগুলোর নামজারি কার্যক্রম খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

তদন্তকারী কর্মকর্তা ইউএনও শিহাব রায়হান জানান, ইতোমধ্যে বিভাগীয় মামলার তদন্ত কাজ শুরু হয়েছে। তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন জমা দেওয়া হবে।

"