ইসলামপুরে ১০ টাকার চাল বিতরণে অনিয়ম

প্রকাশ : ১২ এপ্রিল ২০১৮, ০০:০০

সাহিদুর রহমান, ইসলামপুর (জামালপুর)

জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলায় হতদরিদ্রদের মাঝে ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিতরণে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। ট্যাক অফিসারের উপস্থিতিতে চাল বিতরণের নিয়ম থাকলেও সে নিয়ম না মেনেই তড়িঘড়ি করে ডিলাররা ওজনে কম দিয়ে চাল বিক্রি করছে। স্থানীয়রা জানান, হতদরিদ্রদের প্রতিটি কার্ডে ৩০০ টাকার বিনিময়ে ৩০ কেজি চাল বিতরণ করার নিয়ম রয়েছে। কিন্তু ৩০ কেজির পরিবর্তে প্রতিটি কার্ডে ২৮-২৯ কেজি করে চাল বিতরণ করে আসছেন ডিলাররা।

চাল বিতরণের সময় গতকাল মঙ্গলবার সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, চিনাডুলী, বেলগাছা,ও গাইবান্ধা ইউনিয়নের চাল বিতরণ কেন্দ্রে তদরকারি কর্মকর্তা ছাড়াই ডিলাররা ৩০ কেজি স্থলে ১ কেজি করে চাল ওজনে কম দিচ্ছেন উপকার ভোগীদের।

গোয়ালেরচর ইউনিয়নের মহলগিরী শিক্কু দুলাল, বিশু মিয়াসহ আরো অনেকেই জানান, তাদের ৩০ কেজি চাল দেওয়ার কথা সেখানে পাচ্ছি আড়ে ২৮ কেজি আবার কারো হচ্ছে ২৯ কেজি করে। কমের কথা ডিলারের কাছে জানতে চাইলে আমাকে ডিলার নজরুল বলেন, ৫০ কেজি করে চালের বস্তা পাইছি সেখানে ৪৯ কেজি হওয়ায় আপনাদের এক কেজি করে কম দেওয়া হচ্ছে।

এ ব্যাপারে গোয়ালেরচর ইউনিয়নে মহলগিরি বাজারে ২৩ নং ডিলার নজরুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি চাল ওজনে কম দেইনি কাউকে। তবে কম যেতে পারে মাঝে মধ্যে। নাম প্রকাশ না করে আরেক ডিলার বলেন, গোডাউন থেকে ৫০ কেজি চালের বস্তায় ৪৯ কেজি চাল থাকায় আমরা ১ কেজি করে চাল কোথায় পাব। সে জন্যই কম দেওয়া হচ্ছে শতকরা দু-একজনকে।

এ ব্যাপারে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক সোহানা বিলকিস বলেন, নোটিস বোর্ডে তালিকা দেওয়া আছে সেখান থেকে আপনারা তালিকা নিয়ে মাঠে তথ্য সংগ্রহ করে নেবেন। এর চেয়ে বেশি তথ্য দেওয়া যাবে না। আর যদি তালিকার প্রয়োজন মনে করেন ইউএনও এর কাছে থেকে নেবেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মাদ মিজানুর রহমান বলেন, যদি কোনো ডিলার চাল ওজনে কম দেয়, তাহলে যাচাই-বাছাই করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

"