ঠাকুরগাঁওয়ে খুনের সাত বছর পর যুবকের যাবজ্জীবন

প্রকাশ : ১২ মার্চ ২০১৮, ০০:০০

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি
ama ami

ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলায় সাত বছর আগে প্রতিবেশী ছুরিকাঘাতে খুনের দায়ে আব্দুল খালেক (৩৮) নামে এক ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদ- দিয়েছে আদালত। গতকাল রোববার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে ঠাকুরগাঁও অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. হায়দার আলী আসামির উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন। রায়ের পর আসামিকে ঠাকুরগাঁও জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়। মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আব্দুল হামিদ জানান, দ-প্রাপ্ত আব্দুল খালেক বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার মেছনী গ্রামের রহিম উদ্দীনের ছেলে। যাবজ্জীবনের পাশাপাশি তাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা ছাড়াও অনাদায়ে আরও তিন মাসের কারাদ- দেওয়া হয়েছে।

মামলা নথি জানা গেছে, গত ২০১২ সালের ৯ আগস্ট জমাজমা নিয়ে বিরোধে আব্দুল খালেক তারই প্রতিবেশি আব্দুল হককে মারধর করে এবং বুকে ছুরি দিয়ে আঘাত করে জখম করে। পরে স্থানীয়রা আব্দুল হককে উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুর ১টার দিকে আব্দুল হক মারা যায়। এ ঘটনায় ঘটনার দিনই আব্দুল হকের ছেলে শাহ আলম বাদী হয়ে বালিয়াডাঙ্গী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। পরে স্থানীয়রা আসামি আব্দুল খালেককে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। আইনজীবী হামিদ বলেন, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা তৎকালীন বালিয়াডাঙ্গী থানার এসআই আনোয়ারুল করিম সরেজমিনে মামলাটি তদন্ত শেষে গত ২০১২ সালের ১৭ ডিসেম্বর আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন। দায়রা জজ আদালতে ঐ মামলায় ১৬ জন ব্যক্তির স্বাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়। এরপর আসামি আব্দুল খালেকের বিরুদ্ধে দন্ডবিধির ৩০২ ধারায় অভিযোগ প্রমাণিত হলে আদালত এ রায় ঘোষণা করেন।

"