উল্লাপাড়ায় ইউপি ভবনে চলছে এনজিওর অফিস

প্রকাশ : ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০

উল্লাপাড়া (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় দুর্গানগর ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়টি প্রায় ২১ মাস আগে উদ্বোধন করা হলেও কার্যক্রম শুরু হয়নি। সেখান কাজ করেছে বেসরকারি সংস্থা (এনজিও) ভার্ক এবং মোবাইল সার্ভিসিংয়ের দোকান। আর দূর্গানগর ইউনিয়নের কাজ চলছে উল্লাপাড়া পৌরসভা ভবনে।

সরেজমিনে জানা যায়, ২০১৬ সালের ৩১ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম বাবলাপাড়ায় প্রায় সাড়ে ৮৬ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত দূর্গানগর ইউপি কমপ্লেক্স ভবনটির উদ্বোধন করেন। এ দিকে উল্লাপাড়া পৌরসভা থেকে দূর্গানগর ইউনিয়নের বর্তমান কার্যালয়টি পৌরসভার অনুকুলে হস্তান্তরের বিষয়ে একাধিকবার লিখিত ভাবে জানানো হলেও কোন ফল আসেনি। উল্লাপাড়ার সবচেয়ে বড় আয়তনের দূর্গানগর ইউপির কার্যক্রম পৌরসভার এলাকার স্টেশন বাজারে আগের কার্যালয়েই চালানো হচ্ছে। উল্লাপাড়া উপজেলার বাবলাপাড়ায় সরকারি ৮৬ লাখ ৩৩ হাজার ৬শ ৩৪ টাকা ব্যয়ে যাবতীয় সুযোগ সুবিধা সম্বলিত দূর্গানগর ইউপি কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণ করা হয়। উল্লাপাড়া এলজিইডি’র অধীনে নির্মিত এ ভবনের নির্মাণকারী ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে বিগত ২০১৪ সালে ৩০ সেপ্টেম্বর চূড়ান্ত বিল দেওয়ার মাধ্যমে এ ভবন বুঝে নেওয়া হয় বলে জানানো হয়। এরপর দীর্ঘ ২৫ মাস পর ২০১৬ সালের ৩১ অক্টোবর এর উদ্বোধন করা হয়। এ কমপ্লেক্স ভবনটির উদ্বোধনের পর প্রথম দিকে সপ্তাহের একদিন প্রতি সোমবার মাত্র কয়েক ঘণ্টার জন্য শুধুমাত্র গ্রাম আদালতের কার্যক্রম চালানো হয়।

গত বুধবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, কমপ্লেক্সটিতে ভার্ক নামের একটি এনজিও প্রতিষ্ঠান অফিস খুলে আছে। এছাড়া বাকি সবগুলো রুম তালাবদ্ধ রয়েছে। এ ভবনের দোতলায় মোবাইল সার্ভিসিং এর সাইনবোর্ড ঝুলানো আছে। দূর্গানগর ইউপি চেয়ারম্যান আফছার আলীর বক্তব্য, নতুন ঠিকানায় অর্থ্যাৎ বাবলাপাড়ায় কার্যালয়টি স্থানান্তর হলে বর্তমান কার্যালয়ের যাবতীয় সম্পদ উল্লাপাড়া পৌরসভা কর্তৃপক্ষ নিয়ে নিবে। প্রায় ৩১ শতক সম্পত্তির বর্তমান বাজার মূল্য ৫০ লাখ টাকার উপরে জানিয়ে আরো বলেন, এটি নিতে পারলে পৌরসভা কর্তৃপক্ষ লাভবান হবে। তার পরিষদের ক্ষতি হবে। এছাড়া এলাকাটি নিচু হওয়ায় বর্ষাকালে সমস্যা হয় আর পরিষদে আসা যাওয়ার পুরো রাস্তা নির্মাণ হয়নি।

তিনি আরো বলেন, বর্তমান ঠিকানায় কার্যক্রম চালাতে তো কোন অসুবিধা নেই কিংবা হচ্ছে না। পৌরসভা কর্তৃপক্ষের বক্তব্য, আইনের বিধি বিধান মোতাবেক দূর্গানগর ইউপি’র স্টেশন বাজারে বর্তমান কার্যালয়ের যাবতীয় সম্পত্তি পৌরসভা কর্তৃপক্ষ পাবে। যেহেতু ইউপিটির নিজস্ব সীমানায় কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণ এবং এর উদ্বোধন হয়েছে, সেখানে কার্যালয়ে স্থানান্তরে চেয়ারম্যান অহেতুক বিলম্ব করছেন। এরজন্য একাধিকবার ইউপি চেয়ারম্যানকে অবহিত করা হয়েছে। উল্লাপাড়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মারুফ বিন হাবিব বলেন, দূর্গানগর ইউপি’র কার্যালয়টি অবশ্যই নতুন ঠিকানায় স্থানান্তর করতে হবে। এর জন্য তিনি ইউপি চেয়ারম্যানকে দ্রুত তাগিদ দেবেন। উল্লাপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আরিফুজ্জামান জানান, গত কয়েক দিন আগে তিনি দূর্গানগর ইউপি চেয়ারম্যানকে অবিলম্বে বাবলাপাড়ার নতুন কমপ্লেক্সে ইউপি কার্যালয় স্থানান্তরের বিষয়টি কঠোরভাবে নির্দেশনা আকারে জানান। এটি যেহেতু এখনো স্থানান্তর করা হয়নি প্রয়োজনে স্থানান্তরে আবারও চেয়ারম্যানকে জানানো হবে।

"