স্বপ্নের সবুজ নগরী বাস্তবায়নের পথে : সাঈদ খোকন

প্রকাশ : ১১ আগস্ট ২০১৭, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র সাঈদ খোকন বলেছেন, আমি আলোকিত ও সবুজ নগরের স্বপ্ন দেখেছিলাম। আলোকিত নগরের স্বপ্ন আজ বাস্তবে রূপ নিয়েছে। শিগগির স্বপ্নের সবুজ নগরীও বাস্তবায়ন হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর স্বামীবাগে মিতালী বিদ্যাপীঠে ‘সবুজ স্কুল গড়ি দেশটাকে পরিবর্তন করি’ সেøাগান সামনে রেখে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন পরিবর্তন চাই আয়োজিত ‘সবুজ ইশকুল গড়ি’ অভিযানের উদ্বোধনকালে মেয়র এসব কথা বলেন।

মেয়র বলেন, ঢাকাকে বাসযোগ্য করার জন্য ‘জল সবুজে ঢাকা’ প্রকল্পের আওতায় ১৯টি পার্ক ও ১২টি খেলার মাঠের আধুনিকায়নের কাজের নকশার কাজ ইতোমধ্যেই শুরু হয়েছে। ১০০ জন স্থপতি এই নকশার কাজ করছেন। ২০১৮ সালের জুন মাসে এগুলোর কাজ শেষ হলে ঢাকা এক অনিন্দ্য সুন্দর রূপ লাভ করবে।

জল সুবজে ঢাকা প্রকল্প নিয়ে সাঈদ খোকন বলেন, শিশুরা যেন খেলতে পারে এবং সব নাগরিক যেন বুক ভরে স্বচ্ছ নিঃশ্বাস নিতে পারে নির্বাচনের আগে এই স্বপ্ন দেখতাম। এখন তা বাস্তবায়নের কাজ করে যাচ্ছি। এই প্রকল্পের আওতায় ইতোমধ্যেই পার্কগুলো দখলমুক্ত করা হয়েছে। যারা বাসাবাড়িতে সবুজায়ন করবে তাদের হোল্ডিং ট্যাক্স ১০ শতাংশ মওকুফ করা হবে উল্লেখ করে মেয়র বলেন, যারা বাসাবাড়িতে সবুজায়ন করেছে, ইতোমধ্যে তাদের ১০ শতাংশ ট্যাক্স ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে। আর যারা নতুন করে লাগাবে, তাদেরও মওকুফ করা হবে। এত করে আমাদের শহরের তাপমাত্রা কমে যাবে, বুক ভরে স্বচ্ছ নিঃশ্বাস নিতে পারবে এবং ঢাকাকে একটা বাসযোগ্য শহর গড়ে তোলা যাবে।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ করে সাঈদ খোকন বলেন, নির্দিষ্ট স্থানে ময়লা ফেলার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে। সবুজায়নের এ উদ্যোগ বিভিন্ন স্কুল ও পাড়া-মহল্লায় ছড়িয়ে দিতে এ আশাবাদ ব্যক্ত করে এ কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করেন। পরে মেয়র বিদ্যাপীঠ প্রাঙ্গণে একটি গাছের চারা রোপণ করেন।

‘পরিবর্তন চাই’-এর চেয়ারম্যান ফিদা হক জানান, ২০১৪ সালে শুরু হওয়া এ কর্মসূচি এবার তৃতীয়বারের মতো আয়োজন করা হয়েছে। সারা দেশে প্রায় এক লাখ ১০ হাজার স্বেচ্ছাসেবক এ কর্মসূচিতে অংশ নেবেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন-স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের বাংলাদেশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আবরার আনোয়ার, অ্যাকশন এইড বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর ফারাহ কবির, ডিএসসিসির ৪০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মকবুল ইসলাম প্রমুখ।

"