শেখ রাসেলের ৫৬তম জন্মদিন পালিত

প্রকাশ : ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

শ্রদ্ধা এবং ভালোবাসায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছোট ছেলে শেখ রাসেলের ৫৬তম জন্মদিন পালিত হয়েছে। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট কালরাতে বঙ্গবন্ধু এবং তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যের মতো এই নিষ্পাপ শিশুকেও ঠাণ্ডা মাথায় খুন করা হয়েছিল। জন্মদিন উপলক্ষে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন এবং বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করে।

গতকাল শুক্রবার সকাল ৮টায় বনানী কবরস্থানে শেখ রাসেলসহ ১৫ আগস্টে নিহত শহীদদের কবরে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

এ সময় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ ও জাহাঙ্গীর কবির নানক, গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, দফতর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এস এম কামাল হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর পর সাংবাদিকদের ওবায়দুল কাদের বলেন, মানবসভ্যতার ইতিহাসে শেখ রাসেলকে হত্যা ঘৃণ্য অপরাধ। সভ্যতার ইতিহাসে রাজনৈতিক হত্যাকা-ে কোনো নারী বা অবলা শিশুকে টার্গেট করা হয় না। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার সময় ১০ বছরের অবুঝ শিশু শেখ রাসেলকেও হত্যা করা হয়।

পরে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগ, আওয়ামী যুবলীগ, আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ, তাঁতী লীগ, শ্রমিক লীগ, ছাত্রলীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, মহিলা শ্রমিক লীগ, কৃষক লীগসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন শহীদ শেখ রাসেলের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করে।

পরে বনানীর কবরস্থান মসজিদে শেখ রাসেলসহ ১৫ আগস্টের শহীদদের স্মরণে মিলাদ-মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া ও মিলাদে আওয়ামী লীগ ও আওয়ামী লীগের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতারা অংশ নেন।

শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিশোর পরিষদ জন্মদিন উপলক্ষে বিকেলে দাবা, চিত্রাংকন, সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় বিজয়ী ছাত্রছাত্রীদের পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রধান অতিথি ছিলেন। শেখ রাসেলের জন্মদিন উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু ডিপ্লোমা প্রকৌশলী পরিষদের উদ্যোগে বিকেলে কাকরাইলের আইডিইবি ভবনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী আরো বলেন, বিএনপির একটি রোগ আছে। সেটা হলোÑ অভিযোগ। অভিযোগ নামক রোগ বিএনপিকে পেয়ে বসেছে। তারা কথায় কথায় অভিযোগ করে, নালিশ করে। এ ছাড়া তো তাদের আর কিছু করার নেই।

তিনি বলেন, বিএনপি রাজনীতির ইতিবাচক ধারায় ফিরে আসুক, এটা আমরা চাই। তারা অভিযোগ আর নালিশের রাজনীতি বাদ দিয়ে গণরাজনীতির ধারায় ফিরে আসুক, সেটাই আশা করি।

বিএনপি সরকারের বিরুদ্ধে বিষোদ্গার করছে এবং দায়িত্বশীল বিরোধী দলের বদলে দায়িত্বজ্ঞানহীন সব কর্মকা-েই জড়িয়ে পড়ছেÑ এ কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, তারা নির্বাচন ও আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে এখন ইস্যু খুঁজে বেড়াচ্ছে। কোনো একটা ইস্যু পেলেই তারা তার মধ্যে রাজনীতি খুঁজে পায়।

তিনি বলেন, নিরাপদ সড়ক, কোটা সংস্কার আন্দোলনÑ এমন একটা কিছু পেলেই তারা তা ধরে বসে। ফাহাদ হত্যাকা-ে তারা ইস্যু খোঁজার চেষ্টা করেছিল। কিন্তু তাদের ইস্যু খোঁজার রাজনীতিতে জনগণ সাড়া দেয়নি।

"