ময়মনসিংহে যানজটে ভোগান্তি চরমে

প্রকাশ : ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০

মহানগর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

ময়মনসিংহ নগরীতে দিন দিন বেড়েই চলছে যানজট। অনিয়ন্ত্রিত ব্যাটারিচালিত ও মোটরচালিত অটোরিকশা, সরু রাস্তাঘাট, ফুটপাত দখলের কারণে নগরবাসীর নিত্যদিনের ভোগান্তির নাম এখন যানজট। এতে ব্যাহত হচ্ছে নগরবাসীর স্বাভাবিক জীবনযাপন।

গতকাল বুধবার নগরীর জিলা স্কুল মোড়, নতুন বাজার, গাঙ্গিনারপাড়, ফুলবাড়িয়া বাসস্ট্যান্ড, চরপাড়াসহ বিভিন্ন এলাকার সড়ক ঘুরে দেখা মিলেছে তীব্র যানজটের চিত্র।

নগরিকদের অভিযোগ, জিলা স্কুল মোড় থেকে গাঙ্গিনারপাড় পর্যন্ত মাত্র এক কিলোমিটার সড়ক পাড়ি দিতে সময় লাগে প্রায় আধা ঘণ্টা। যেখানে আগে লাগত মাত্র পাঁচ মিনিট। এ ছাড়া চরপাড়ার ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সামনের সড়কে সর্বত্র যানজট যেন নিত্যসঙ্গী। এতে ভোগান্তি পোহাতে হয় সাধারণ পথচারী, রোগী কিংবা রোগীর স্বজনদের। যার ফলে যানজটে অতিষ্ঠ মানুষজন ইজিবাইক ও রিকশা থেকে নেমে হেঁটেই গন্তব্যে ছুটেন।

ময়মনসিংহ ট্রাফিক বিভাগ বলছে, বর্তমানে নগরের বিভিন্ন এলাকায় নালাব্যবস্থার উন্নয়নকাজ চলার কারণে কিছুটা যানজটের কবলে পড়তে হচ্ছে। এ ছাড়া অবৈধ ইজিবাইক চলাচল ও ময়মনসিংহের আশপাশের বন্যাদুর্গত এলাকার কিছু মানুষ কাজের জন্য নগরে আসায়যানজট বেড়েছে। তবে ট্রাফিক বিভাগ নগরের যানজট নিয়ন্ত্রণে রাখতে নিয়মিত কাজ করে যাচ্ছে।

জানা যায়, যানজটের এই ভোগান্তি দূর করতে তিন বছর আগে নগরে চলা অটোরিকশাগুলোকে জোড় ও বিজোড় নম্বরে ভাগ করে লাল ও সবুজ রং দেয় তখনকার পৌরসভা কর্তৃপক্ষ। তখন থেকে এক দিন জোড় ও পরদিন বিজোড় নম্বরের অটোরিকশা চলাচল করার নিয়ম করে দেওয়া হয়। তবে এ নিয়ম পুরোপুরি মানা হচ্ছে না। প্রতিদিন নিয়ম মেনে নির্দিষ্ট রঙের অটোরিকশা চলাচল করতে দেখা গেলেও অনেক অটোরিকশা দিনে চলার পর রাতারাতি রং বদলে আবার চলাচল করছে। চালক ও মালিকরা গোপন স্থানে এ রং বদল করেন। বেশ কয়েকবার যার প্রমাণও মিলেছে।

সিটি করপোরেশনের প্রশাসনিক কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম বলেন, রাতারাতি রং বদল করার অপরাধে ইতোমধ্যে বেশ কিছু অটোরিকশা চালকদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত এ অপরাধের কারণে সিটি করপোরেশন দুই লাখ টাকা জরিমানা আদায় করেছে। অপরাধ দমনের জন্য উদ্যোগ অব্যাহত আছে।

ময়মনসিংহ ট্রাফিক বিভাগের পরিদর্শক (প্রশাসন) কাজী আসাদুজ্জামান বলেন, নগরের যানজটের প্রধান কারণ হচ্ছে অটোরিকশা। ধারণা করা হচ্ছে, বৈধ অটোরিকশার বাইরে শহরে অসংখ্য অবৈধ অটোরিকশা চলে। এ ছাড়া নিয়ন্ত্রণহীন মোটরচালিত অটোরিকশা তো রয়েছেই। যার কারণে যানজট নিয়ন্ত্রণ করা কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে। তারপরও আমরা আমাদের সাধ্যমতো চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের (মসিক) মেয়র ইকরামুল হক বলেন, সদর উপজেলার একটি ইউনিয়নের সম্পূর্ণ অংশ সিটি করপোরেশনের সঙ্গে যুক্ত হওয়ার কারণে ওই ইউনিয়নের কিছুসংখ্যক অটোরিকশা নগরে ঢুকছে। এতে যানজট কিছুটা বেড়েছে। শিগগিরই সেগুলোকে একটি নিয়মের মধ্যে নিয়ে আসা হবে।

"