এডিস মশা নির্মূল অভিযান

রাজধানীতে ২ লাখ টাকা জরিমানা

প্রকাশ | ২০ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীর মহাখালীতে পারটেক্স গ্রুপের প্রধান কার্যালয় প্রাঙ্গণে এডিস মশার লার্ভা পাওয়ায় প্রতিষ্ঠানটিকে ২ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া মহাখালী বাস টার্মিনালের ঠিক পেছনে পরিত্যক্ত অবস্থায় পাওয়া দুটি টায়ারে এডিস মশার লাভা পাওয়ায় টায়ার মালিককে ৫ লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে সাত দিনের কারাদ- প্রদানের নির্দেশ দেওয়া হয়। গতকাল সোমবার দুপুরে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলামের উপস্থিতিতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাজিদ আনোয়ারের নেতৃত্বে মহাখালী এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়।

ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকালে মহাখালী ওয়্যারলেস গেটে পারটেক্স গ্রুপের প্রধান কার্যালয়ের পেছনে একটি বড় গরুর খামারে অপরিচ্ছন্ন, নোংরা ও দুর্গন্ধময় পরিবেশ দেখতে পায়। সেখানে বেশকিছু পরিত্যক্ত টায়ার, কন্টেইনার, বোতল, মোটরসাইকেলসহ বিভিন্ন পাত্রের ভেতরে এডিস মশার লার্ভার উপস্থিতি পাওয়া যায়। দেশব্যাপী পরিচ্ছন্নতা অভিযান, ব্যাপক প্রচারণার পরেও এডিস মশার লার্ভা ও এডিস মশার বংশবিস্তার উপযোগী পরিবেশ পাওয়ায় স্থানীয় সরকার (সিটি করপোরেশন) আইন, ২০০৯ অনুযায়ী পারটেক্স গ্রুপকে জরিমানা করা হয়। পরিত্যক্ত মালামাল, আবর্জনা ও টায়ার দ্রুত অপসারণের জন্য তাদের সতর্ক করার পাশাপাশি ২ লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। পারটেক্স গ্রুপের গেটের বাইরে থাকা স্থানীয় এক বাসিন্দা জানান, গত রোববার এখানে সিটি করপোরেশনের মশক নিধনকর্মী মশার কীটনাশক প্রয়োগ করতে গেলেও তাদের ঢুকতে দেয়নি পারটেক্স গ্রুপ।

পরে মহাখালী বাস টার্মিনালের ঠিক পেছনে পরিত্যক্ত অবস্থায় পাওয়া যায় দুটি টায়ার। সেখানে সন্ধান মেলে এডিস মশার লার্ভার। ওষুধ স্প্রে করতেই বেরিয়ে আসে ঝাঁকে ঝাঁকে মশা। বিষয়টি দেখে ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম। সঙ্গে সঙ্গে ডিএনসিসির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে নিয়ে ঘোষণা দিলেন জরিমানা ও শাস্তির। যদিও মহাখালী বাস টার্মিনালের পেছনের ওই জমির মালিক কে, শুধু তা-ই জানা গেছে। তবে কে টায়ার রেখেছে তা শনাক্ত করা যায়নি।

টার্মিনালের পেছনের খাল ও এডিস মশা জন্মাতে পারেÑ এমন সম্ভাব্য জায়গাগুলো পরিদর্শন করেন তিনি। এ সময় একটি টায়ারে মশার ওষুধ স্প্রে করার পর অসংখ্য মশা দেখতে পাওয়ায় টায়ার মালিককে ৫ লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে সাত দিনের কারাদ- প্রদানের নির্দেশ দেওয়া হয় ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে। কিন্তু টায়ার মালিক কেÑ তা অভিযান পরিচালনা পর্যন্ত নিশ্চিত করা যায়নি। মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, এসব টায়ার থেকে এডিস মশা জন্মায়। আমি ১৫ দিন আগে এসব টায়ার সরাতে বলেছিলাম। কিন্তু কেউ তা করেনি। এজন্য এ টায়ার মালিককে জরিমানা এবং অনাদায়ে শাস্তি দেওয়া হলো। এটি টার্মিনাল এলাকার বাইরে। বাস মালিকরা আমাকে বলেছেন, এটি ওয়াসার জায়গা।

এরপর বাস মালিকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়, জরিমানা করা টায়ার পরিত্যক্ত। এগুলো কিনে রাবার বের করা হয়। যারা এগুলো কিনেছে তাদের শনাক্ত করে জরিমানা আদায় করা হবে।

প্রসঙ্গত, প্রাণঘাতী জ্বর ডেঙ্গুর জীবাণুবাহক এডিস মশা নিধনে ‘চিরুনি অভিযান’ চালানোর ঘোষণা দিয়েছে ডিএনসিসি। আজ মঙ্গলবার ঢাকা উত্তরের ১৯নং ওয়ার্ড দিয়ে অভিযানটি শুরু হবে। প্রতিটি ওয়ার্ডকে ১০ ভাগে ভাগ করে একজন পরিচ্ছন্নতাকর্মীর নেতৃত্বে ১০ জনের একটি দল মশক নিধন অভিযান পরিচালনা করবে। এক দিনে একটা ওয়ার্ডে অভিযান হবে। একজন কর্মকর্তা কার্যক্রম তদারক করবেন।

কোনো বাড়িতে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া গেলেÑ একটি লাল রঙের স্টিকার ওই বাড়িতে লাগিয়ে দেওয়া হবে। কিছুদিন পর সেই বাড়িতে গিয়ে যদি লার্ভা পাওয়া যায়, তাহলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়।

 

"