টিকিটপ্রত্যাশীদের শরবত দিয়ে আপ্যায়ন

প্রকাশ : ১০ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০

রাজশাহী ব্যুরো

ঈদে ট্রেনের টিকিট? সে তো সোনার হরিণ। একটি টিকিটের জন্য দুর্ভোগ পোহাতে হয় মানুষকে। পরের দিন সকালের জন্য লাইনে দাঁড়াতে হয় আগের দিন রাতে। গত কয়েক বছর ধরে টিকিটপ্রত্যাশীদের উপচে পড়া সেই লাইনের দৃশ্য তাই সবার চোখে যেন সয়ে গেছে। তবে নতুন খবর হচ্ছে রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনে গত চার দিনে ঈদের পর কর্মস্থলে পৌঁছানোর জন্য ফিরতি টিকিট করতে এসে আপ্যায়িত হয়েছেন লাইনে দাঁড়ানো মানুষ।

খেজুর ও শরবত দিয়ে তাদের নিদারুণ কষ্টে পাশে দাঁড়িয়েছেন পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের প্রধান সংকেত ও টেলিকম প্রকৌশলী অসীম কুমার তালুকদার। ব্যক্তি উদ্যোগেই কাজটি করেছেন এ কর্মকর্তা। জানতে চাইলে তিনি গতকাল শুক্রবার বলেন, অনেকে টিকিটের জন্য সারা রাত রেলওয়ে স্টেশনের কাউন্টারের সামনে অপেক্ষা করেন। গরমের মধ্যে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করায় তারা তৃষ্ণায় ভোগেন। সেই কথা চিন্তা করে নিজ উদ্যোগে এই খেজুর ও শরবতের ব্যবস্থা।

তৃষ্ণার্ত মানুষকে এই সামান্য আপ্যায়ন করতে পেরে তিনি খুশি। এর মধ্যে দিয়ে অন্তত দুর্ভোগের কাতারে থাকা এই মানুষগুলোর কাছে সহমর্মিতা প্রকাশ করা গেছে বলেও মনে করেন তিনি। অসীম তালুকদার বলেন, বিশুদ্ধ পানি, লেবু ও ইসুবগুলের ভুসি দিয়ে স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে বানানো শরবত তাদের পান করতে দেওয়া হয়েছে। সঙ্গে দেওয়া হয়েছে খেজুর। গত সোমবার প্রথম দিন হওয়ায় অল্প মানুষ ছিল।

খাওয়ানো হচ্ছে খেজুর এরপর দিন মঙ্গলবার ৩০০, বুধবার থেকে বৃহস্পতিবার ও গতকাল শুক্রবার পর্যায়ক্রমে ৫০০ ফিরতি টিকিটপ্রত্যাশীকে খেজুর ও শরবত দিয়ে আপ্যায়নের চেষ্টা করা হয়েছে।

"