নাড়ির টানে ছুটছে মানুষ ঢাকা হচ্ছে ফাঁকা

প্রকাশ : ১০ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

ঈদের ছুটি কাটাতে নাড়ির টানে বাড়ি ফিরছেন নগরবাসী। রাজধানী ঢাকা এখন অনেকটাই ফাঁকা। চিরচেনা সেই যানজটের শহর যেন বদলে গেছে। তবে উপচে পড়া ভিড় এখন রাজধানীর মহাখালী, সায়েদাবাদ, গাবতলী বাসস্ট্যান্ড, সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল এবং কমলাপুর রেলস্টেশনে।

গতকাল শুক্রবার সকালে সরেজমিনে দেখা গেছে, স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে অনেক বেশি ফাঁকা রাজধানীর সব সড়ক। সকাল থেকেই লোকজনকে পরিবার-পরিজনসহ বাস, ট্রেন বা লঞ্চ টার্মিনালের দিকে ছুটতে দেখা গেছে। অন্য সময় ছুটির দিনেও রাস্তাঘাটে হাজারো মানুষের ভিড় দেখা গেলেও গতকাল সেই চিত্র উধাও।

প্রতিদিন গন্তব্যে পৌঁছানোর জন্য রাজধানীর যাত্রীদের বাসে উঠতে রীতিমতো যুদ্ধ করতে হয়। গতকাল শুক্রবার দেখা গেছে, স্টপেজে বাসের হেল্পাররা অনেকক্ষণ দাঁড়িয়ে থেকে হাঁকডাক করে যাত্রী তুলছিলেন। অধিকাংশ বাসের সিটই ছিল ফাঁকা। রাস্তাঘাট ফাঁকা থাকায় ভিআইপি সড়কগুলোতেও দেখা যায় রিকশা চলাচল করতে। প্রায় প্রতিটি রাস্তা ফাঁকা থাকায় প্যাডেল ও ব্যাটারিচালিত রিকশা, সিএনজিচালিত অটোরিকশা, মোটরসাইকেল, প্রাইভেট কার ও ছোট-বড় বাস দ্রুত গতিতে গন্তব্যে ছুটছিল।

সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল থেকে চাঁদপুরগামী সোনারতরী লঞ্চের কর্মীরা জানান, সকাল ৭টা ২০ মিনিটে ছাড়ে এ লঞ্চ। কিন্তু ফজর নামাজের পরপরই লঞ্চ যাত্রীতে ভরে গেছে। এরই মধ্যে সব কেবিন, প্রথম শ্রেণির টিকিট শেষ হয়ে গেছে।

অন্যদিকে মহাখালী বাসস্ট্যান্ডে গিয়ে দেখা গেছে, নিয়মিত বিরতি দিয়ে দূরপাল্লার বাসগুলো ঢাকা ছাড়ছে। ময়মনসিংহ, জামালপুর, নেত্রকোনাগামী প্রতিটি বাসেই কোনো সিট খালি নেই। নির্দিষ্ট গন্তব্যের বাসে উঠতে প্রতিযোগিতায় মেতেছেন যাত্রীরা।

শাহবাগের সেই চিরচেনা যানজটের দৃশ্যটি নেই। নেই শত শত মানুষের যানবাহনের অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে থাকা, আর বাসে উঠার হুড়োহুড়ির দৃশ্যও। বাস আগে থেকে যাত্রী পরিপূর্ণ থাকায় তা দ্রুত বেগে চলে যাওয়া এ সবই উধাও।

গত বৃহস্পতিবার থেকেই বাসের যাত্রী কমতে শুরু করেছে উল্লেখ করে একটি বাসের হেল্পার সুমন জানান, আগে গুলিস্তান থেকে শাহবাগ পর্যন্ত আসতে ৩০ মিনিট থেকে ১ ঘণ্টা লাগলেও রাস্তা ফাঁকা থাকায় আজ (শুক্রবার) ৫ মিনিটেরও কম সময়ে শাহবাগ পৌঁছেছে তার বাসটি। বেশ কয়েকটি বাসের হেলপার জানান, গত বৃহস্পতিবার এক একটি সিগনাল পার করতেই দিন পেরিয়ে গেছে তাদের। অথচ গতকাল শুক্রবার যাত্রী নেই দেখে বাস ছাড়তে পারছেন না তারা।

এক চালক বলেন, আজ (শুক্রবার) রাস্তা স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে অনেক ফাঁকা। ঢাকার ভেতরের যাত্রী নেই বললেই চলে। বাস, কেউ ট্রেন আবার কেউবা লঞ্চ টার্মিনালের যাত্রীর সংখ্যাই বেশি।

ডেমরা সানারপাড় এলাকার বাসিন্দা নাসিমুল হাসান নামের এক বাস যাত্রী জানান, মোহাম্মদপুরে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে পৌঁছাতে প্রতিদিন তাকে যুদ্ধ করে বাসে উঠতে হয়। কিন্তু আজ (শুক্রবার) বাসে যাত্রী সংখ্যা খুবই কম। তাই এক সিটে বসে বেশ আরামেই গন্তব্যে যাচ্ছেন তিনি।

এদিকে গণপরিবহনের বেশির ভাগই যাত্রী টানছে দূরপাল্লায়। রাজধানীর সড়কে তাই লোকাল বাস কমে গেছে অর্ধেকের বেশি। ফলে ঢাকায় ট্রাফিক সিগনালে আর খুব একটা বসে থাকতে হচ্ছে না। কোথাও কোথাও যানজটের সৃষ্টি হলেও, সেটি খুব বেশি স্থায়ী হচ্ছে না। তবে লোকাল বাসের সংকটেরও সৃষ্টি হচ্ছে।

"