২৬০ কোটি টাকার এলইডি বাতি

চসিক সাজবে নতুন রূপে

প্রকাশ : ১০ জুলাই ২০১৯, ০০:০০

চট্টগ্রাম ব্যুরো

এলইডি বাতিতে আলোকিত হবে নগরী। সাজবে নতুন সাজে। নগরবাসী দেখবে অন্যরকম নগরীকে। এতে মানুষের চলাচল ও ট্রাফিক ব্যবস্থায় কার্যকর ভূমিকা পালন করবে। পাশাপাশি বৃদ্ধি পাবে সামাজিক নিরাপত্তা। একই সঙ্গে কম কার্বন নির্গমন এবং শক্তি শোষণ সম্পর্কিত পরিবেশবান্ধব প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে ট্রাফিক ও পথচারীর জন্য স্মার্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের মাধ্যমে সড়কবাতির আলো নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হবে। গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) এলইডি বাতির সাহায্যে ৪৬৬ কিলোমিটার সড়ক আলোকায়নের জন্য একটি প্রকল্প অনুমোদন হয়েছে।

চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামশুদ্দোহা প্রতিদিনের সংবাদকে বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ২৬০ কোটি টাকার প্রকল্পটির অনুমোদন হয়েছে। এরই মধ্যে রাজস্ব তহবিল থেকে ১৬ কিলোমিটার ও প্রকল্পের মাধ্যমে ৫৮ কিলোমিটার সড়ক এলইডির আওতায় আনা হয়। নতুন প্রকল্প অনুমোদিত হওয়ায় ৪৬৬ কিলোমিটার সড়ক এলইডির আওতায় আসবে। এলইডি বাতির ক্ষেত্রে ৫ বছর রক্ষণাবেক্ষণ খাতে কোনো খরচই থাকবে না।

প্রকল্পের উন্নয়ন প্রস্তাবনা (ডিপিপি) সূত্রে জানা গেছে, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের গৃহীত এ প্রকল্পের আওতায় ৪১ ওয়ার্ডের বিভিন্ন সড়কজুড়ে এলইডি লাইট লাগানো হবে। প্রকল্পের মেয়াদ ধরা হয়েছে চলতি বছরের জুন থেকে ২০২১ সালের জুন পর্যন্ত। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হবে বৈদেশিক ঋণ সহায়তা ও সরকারের নিজস্ব অর্থ দিয়ে। যার মধ্যে ভারত সরকার ঋণ দিচ্ছে ২১৪ কোটি ৪৬ লাখ ৮২ হাজার টাকা এবং জিওবি থেকে ৪৬ কোটি ৪৩ লাখ ৫ হাজার টাকা। প্রকল্পটির প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছে ২৬০ টাকা (প্রায় ২৬১ কোটি) টাকা।

জানা যায়, বর্তমানে ৪০ ওয়াট টিউব বাতি, ৬৫ ওয়াট এনার্জি বাতি, ১৫০ ওয়াট হাইপ্রেসার সোডিয়াম, ৪০০ ওয়াট মেটাল হ্যালাইড বাতি ব্যবহার করা হচ্ছে সড়কে। তবে এসব লাইটে বেশি পরিমাণ বিদ্যুৎ অপচয় হয়।

চসিকের প্রধান প্রকৌশলী লেফটেন্যান্ট কর্নেল মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, গতকাল মঙ্গলবার ২৬০ কোটি টাকার প্রকল্পটির অনুমোদন হয়েছে। প্রকল্পটির আওতায় নগরীর প্রতিটি মূল পয়েন্টে এলইডি বাতি বসানো হবে। যেগুলো ভালো আছে সেগুলো বিভিন্ন গলি ও আবাসিকে লাগানো হবে।

চসিকের নির্বাহী প্রকৌশলী ঝুলন কুমার দাশ বলেন, নগরীর সব সড়কে এলইডি লাইট বসানো হবে। এরই মধ্যে রাজস্ব খাত ও মন্ত্রণালয়ের সহায়তায় ৭০ কিলোমিটার প্রধান সড়ক আলোকায়নের আওতায় এসেছে। তিনি বলেন, চসিকের আওতায় নগরীর বেশির ভাগ সড়কে ৪৮ হাজার ৫৫৭টি টিউব ও এনার্জি বাতি স্থাপিত আছে। অন্যদিকে প্রধান সড়কে মোড়সমূহে প্রায় ৪ হাজার ৯৮৬টি হাইপ্রেসার সোডিয়াম এবং মেটাল হ্যালাইড বাতি স্থাপিত আছে।

"