৪০০ শিশুর লেখাপড়ার দায়িত্ব পেয়ারীর কাঁধে

প্রকাশ : ১০ জুন ২০১৯, ০০:০০

রংপুর ব্যুরো

রংপুরে নিম্ন আয়ের অবহেলিত পরিবারের ৪০০ শিশুর পড়ালেখার ভার এখন পেয়ারীর কাঁধে। গতকাল রোববার দুপুরে রংপুর মহানগরীতে এক চায়ের আড্ডায় এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন ফারহানা বেগম পেয়ারী।

তিনি বলেন, অবহেলিত নারী সমাজকে এগিয়ে নিতে প্রশিক্ষণের কোনো বিকল্প নেই। এজন্য তিনি ১০০ নারীর প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছেন। সেইসঙ্গে রংপুর সদর উপজেলা, পীরগাছা ও কাউনিয়া উপজেলায় রওনক শিশু বিকাশ স্কুল নামে ১৮টি বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করে শিশুদের পাঠদান করছেন। পাঠদানের জন্য প্রতিটি বিদ্যালয়ে নিয়োগ দিয়েছেন একজন করে শিক্ষিকা। তার বিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেণি থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত সরকারের দেওয়া বিনামূল্যের বই বিতরণ করা হয়। সেইসঙ্গে বিনামূল্যে শিক্ষার সব উপকরণ শিক্ষার্থীদের মাঝে বিতরণ ও বেতন ছাড়াই শিক্ষার্থীদের পাঠদান করানো হচ্ছে।

পেয়ারী আরো বলেন, আর্থিক সংকটে একসময় তার পড়ালেখা বন্ধ হয়। এরপরেও ওই সংকট তাকে থামাতে পারেনি। অদম্য ইচ্ছাশক্তি কাজে লাগিয়ে প্রথম বিভাগে এমএ পাস করেন। সেইসঙ্গে ব্র্যাক শিক্ষা কর্মসূচির ইতি ঘটিয়ে ওই ৪০০ শিশুর পড়ালেখার ব্যয় কাঁধে উঠান। এখন শিশুগুলোকে নিয়ে তার পথ চলা।

নিজস্ব অর্থায়নে শিশু ও নারীদের জন্য এসব করার কারণ জানতে চাইলে তিনি প্রতিদিনের সংবাদকে বলেন, ‘নারী জাগরণের অগ্রদূত মহিয়সী নারী বেগম রোকেয়ার রংপুরের শিশু ও নারীদের উন্নয়নই আমার উন্নয়ন। যেন মৃত্যুর আগ মুহূর্ত পর্যন্ত অবহেলিত নারী ও শিশুদের নিয়ে কাজ করতে পারি।’

রংপুর জেলা প্রশাসক এনামুল হাবীব এ বিষয়ে বলেন, অবহেলিত, দরিদ্র ও নিম্ন আয়ের পরিবারের শিশুদের দায়িত্ব নিয়ে লেখাপড়া করানো ভালো কাজ। সমাজের বিত্তবানরা যদি এবাবে এগিয়ে আসে তাহলে সমাজের ঝরে পড়া শিশুরা ভবিষ্যতে আলোর মুখ দেখবে।

 

"