রাজশাহীবাসীর ব্রাইট ফিউচারের জার্নি শুরু

প্রকাশ : ১৩ মে ২০১৯, ০০:০০

বিশেষ প্রতিবেদক, রাজশাহী

‘বতর্মানে সিটি করপোরেশনের আয়তন ছোট। সিটি করপোরেশনের আয়তন প্রায় ৪১০ বর্গকিলোমিটারে সম্প্রসারণ করা হবে। এই বৃহৎ এলাকার মানুষকে নগরের সুযোগ-সুবিধা প্রদানে চিহ্নিত করা ৮টি খাতকে সামনে রেখে মাস্টারপ্ল্যান তৈরি করে দেবে পাওয়ার চায়না। চুক্তি আওতায় আগামী তিন বছরের মধ্যে মাস্টারপ্ল্যান তৈরি করা হবে। পরবর্তীতে অগ্রাধিকার ভিত্তিক একটার পর একটা প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে। আগামী ৫০ বছরের মহাপরিকল্পনা করেই আজকে রাজশাহীবাসীর ব্রাইট ফিউচারের জন্য নতুন জার্নি শুরু হলো।’ গতকাল রোববার রাজশাহীর বিভিন্ন খাতে ব্যাপক উন্নয়নের লক্ষ্যে রাজশাহী সিটি করপোরেশন ও চায়নার রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান পাওয়ার চায়নার মধ্যে সমঝোতা স্মারক চুক্তি (এমওইউ) স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন এসব কথা বলেন।

উন্নয়নের বিভিন্ন পরিকল্পনা তুলে ধরে মেয়র লিটন বলেন, ‘পিছিয়ে পড়া রাজশাহীকে এগিয়ে নিতে এই মহাপরিকল্পনা। এরই মধ্যে পদ্মা নদীতে ড্রেজিং কাজ শুরু হয়েছে। সোনাইকান্দি থেকে তালাইমারি পর্যন্ত পদ্মা নদীতে প্রায় ১০/১২ কিলোমিটার জায়গা পাওয়া যাবে। সে জায়গায় স্যাটেলাইট টাউন, হোটেল, মোটেল, বিনোদন পার্ক গড়ে তোলা হবে। নদীর ধার যেভাবে তৈরি হবে, যাতে শহরের প্রায় ৪০ শতাংশ অর্থনৈতিক প্রবাহ সেখান থেকে আসবে। বিমানবন্দরের নতুন টার্মিনাল তৈরি করে অন্যান্য উন্নয়ন, সিঙ্গাপুরের মতো আধুনিক বিশেষায়িত হাসপাতাল, গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় আবাসন প্রকল্প বাস্তবায়ন, সুয়ারেজ ড্রেনেজ ব্যবস্থা ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, নগরের উত্তর দিকে সাইন্স সিটি তৈরি করতে চাই। গণপরিবহন, এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে, মেট্রোরেল ও ফ্লাইওভার তৈরি করা হবে।’

নগর ভবন সভাকক্ষের চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের পক্ষে মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন ও পাওয়ার চায়নার পক্ষে প্রতিষ্ঠানটির বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার হান কুন চুক্তিতে সই করেন।

রাসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শাওগাতুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন রাসিকের প্রধান প্রকৌশলী আশরাফুল হক। পাওয়ার চায়নার প্রতিনিধি দলে আরো ছিলেন লে জে মি. এ্যান্ডু ও ইয়াং শাও। অনুষ্ঠানে সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র-২ ও ১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রজব আলীসহ অন্য কাউন্সিলর, সচিব রেজাউল করিম, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা শাহানা আখতার জাহান, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সমর কুমার পালসহ অন্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

 

"