গোলটেবিল বৈঠকে বক্তারা

বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে বাংলাদেশ সৃষ্টি হতো না

প্রকাশ : ১৬ মার্চ ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

বঙ্গবন্ধু-বাংলাদেশ এবং স্বাধীনতা একই সূত্রে গাথা তিনটি শব্দ। এই তিনটি শব্দ অবিচ্ছেদ্য এমন এক সত্তা, যা বাঙালি জাতির অস্তিত্ব। বঙ্গবন্ধু জন্ম না নিলে স্বাধীন বাংলাদেশ রাষ্ট্র সৃষ্টি হতো না। বঙ্গবন্ধুর আজীবন সংগ্রাম ছিল বাঙালির মুক্তি আর গৌরবময় পরিচয় প্রতিষ্ঠা। সে কারণেই বঙ্গবন্ধুর জন্মের স্মৃতিবিজড়িত মার্চ মাস আর মহান মুক্তিযুদ্ধের তথা স্বাধীনতার মাস মার্চ অবিস্মরণীয় গৌরবের। সে গৌরব অক্ষুণœ রাখা প্রতিটি বাঙালির পবিত্র কর্তব্য। গতকাল শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী ও আসন্ন স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে জাগো বাংলা ফাউন্ডেশন আয়োজিত ‘বঙ্গবন্ধু-বাংলাদেশ ও স্বাধীনতা’ শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনায় বক্তারা এ অভিমত ব্যক্ত করেন। এ গোলটেবিল আলোচনায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের প্রধান নির্বাহী কবি সাংবাদিক নাসির আহমেদ।

আলোচনায় অংশ নেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য মোজাফফর হোসেন পল্টু, বিচারপতি শামসুদ্দীন চৌধুরী মানিক, শিক্ষাবিদ প্রফেসর আব্দুল মান্নান চৌধুরী, নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর জেনারেল অবসরপ্রাপ্ত মো. আলী সিকদার, সম্প্রীতি বাংলাদেশের আহ্বায়ক পীযূষ বন্দোপাধ্যায়, সমকালের সহযোগী সম্পাদক অজয় দাশগুপ্ত, ডিইউজের সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী, আওয়ামী প্রজন্ম লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান দুর্জয় প্রমুখ।

আওয়ামী লীগ নেতা মোজাফফর হোসেন পল্টু বলেন, ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে বাঙালির প্রতিটি অধিকারের আন্দোলনে শীর্ষস্থানে ছিলেন বঙ্গবন্ধু। দূরদর্শী এ নেতা পাকিস্তান আন্দোলনে অংশ নিলেও দেশভাগের পরপরই বুঝেছিলেন এ স্বাধীনতায় বাঙালির মুক্তি আসবে না। তাই বাঙালির স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথে ১৯৪৮ সাল থেকে যাত্রা শুরু করেন বঙ্গবন্ধু। তার ৭ মার্চের ভাষণ ছিল বাঙালির স্বাধীনতাযুদ্ধের দিকনির্দেশনা।

বিচারপতি মানিক বলেন, স্বাধীনতার স্থপতি জাতির পিতার গৌরব এবং মহান স্বাধীনতার মূল্যবোধ মøান করার ষড়যন্ত্র এখনো শেষ হয়নি। খন্দকার মোশতাকের প্রেতাত্মারা এখনো আমাদের চারপাশে ঘাপটি মেরে আছে। এদের বিষয়ে সতর্ক না থাকলে গত ১০ বছরের যে বিশাল অর্জন তা মøান হয়ে যেতে পারে। উপাচার্য অধ্যাপক আব্দুল মান্নান চৌধুরী বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা আজ বাস্তবে রূপ দিচ্ছেন তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রগতির পথে উন্নয়নের এ অভিযাত্রা অব্যাহত রাখতে হলে সতর্কতার সঙ্গে সব ষড়যন্ত্র প্রতিহত করতে হবে।

 

"