হত্যা-নির্যাতনের প্রতিবাদ

রাজশাহীতে আদিবাসী ছাত্র পরিষদের মানববন্ধন সমাবেশ

প্রকাশ : ০৭ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০

বিশেষ প্রতিনিধি, রাজশাহী

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের সাহেবগঞ্জ-বাগদাফার্মের আদিবাসী বাঙালি সাঁওতাল সম্প্রদায়কে হত্যা, বাড়িতে অগ্নিসংযোগ, লুটপাট, ভাঙচুর, নির্যাতনের প্রতিবাদ ও ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণসহ বিচারের দাবিতে রাজশাহী নগরীতে মানববন্ধন ও সমাবেশ হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে নগরীর সাহেববাজার জিরো পয়েন্টে আদিবাসী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। মানববন্ধনে আদিবাসী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নকুল পাহানের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক তরুন মুন্ডা, সহসাধারণ সম্পাদক আপেল মুন্ডা, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক দিলীপ পাহান, কেন্দ্রীয় অর্থ সম্পাদক অনিল রবিদাস, সাংস্কৃতিকবিষয়ক সম্পাদক প্রশান্ত মিনজ্, মলি বিশ্বাস, শিউলি মাহাতো, জাতীয় আদিবাসী পরিষদ রাজশাহী জেলার সভাপতি বিমল রাজোয়াড়, মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক আন্দ্রিয়াস বিশ্বাস, আদিবাসী যুব পরিষদ রাজশাহীর যুগ্ম আহ্বায়ক উপেন রবিদাস, বিশিষ্ট সাংবাদিক ও ন্যাপ রাজশাহী জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান খান আলম, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ রাজশাহী জেলা শাখার সভাপতি কল্পনা রায়, জনউদ্যোগ রাজশাহীর ফেলো জুলফিকর আহমেদ গোলাপ প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, গাইবান্ধায় পুলিশের গুলিতে তিন সাঁওতাল শ্যামল হেমব্রম, রমেশ টুডু ও মঙ্গল মার্ডির হত্যার দুই বছর পার হয়ে গেলেও হত্যাকান্ডের বিচার হয়নি। অগ্নিসংযোগ, উচ্ছেদ ও হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো এখনো ক্ষতিপূরণ পায়নি। অধিগ্রহণ করা তাদের বাপ-দাদার জমি এখনো ফেরত পায়নি। বাগদাফার্ম মিল কর্তৃপক্ষ ও হত্যাকারীরা প্রতিনিয়ত আদিবাসীদের সন্ত্রাসী হামলার হুমকি ও ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। সাঁওতাল হত্যাকান্ডে জড়িত আসামিদের সরকার বা প্রশাসন এখনো গ্রেফতার করতে পারেনি। সাঁওতালদের ঘরবাড়িতে অগ্নিসংযোগকারী সেসব পুলিশ সদস্যের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে পারেনি সরকার। এখনো তারা খোলা আকাশের নিচে দিনাতিপাত করছে। তাদের পুনর্বাসনের কোনো উদ্যোগ সরকার এখনো নিতে পারেনি। এ হামলার মূল হোতা গবিন্দগঞ্জের সংসদ সদস্য আবুল কামাল আজাদ ও সাপমারা ইউপি চেয়ারম্যান শাকিল আকন্দ বুলবুলকে গ্রেফতারের দাবি জানানো হয়।

 

"