অভিজাত শপিংমল থেকে ফুটপাত

সব পোশাক দোকানে বইছে বৈশাখী হাওয়া

প্রকাশ : ১২ এপ্রিল ২০১৮, ০০:০০

পাঠান সোহাগ

দরজায় কড়া নাড়ছে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ। আর একদিন পরেই বাংলা নববর্ষ। বর্ষবরণে রাজধানীসহ সারাদেশে শুরু হয়েছে নানা বর্ণিল আয়োজন। উৎসবের প্রস্তুতি প্রায় শেষ পর্যায়ে। পছন্দের পোশাক কিনতে সকলেই ভিড় করছেন বিপণিবিতানে। পোশাকের দোকানগুলোতে এখন কেনাকাটার ধুম। নামিদামি ফ্যাশন হাউস, বিভিন্ন মার্কেট, শপিং মল ও বিপণিবিতান থেকে শুরু করে ফুটপাতেও লেগেছে বৈশাখী পণ্যের রঙিন ছোঁয়া। বিক্রি বাড়াতে বিভিন্ন পণ্যের মূল্যে ছাড়সহ চলছে আকর্ষণীয় অফারের প্রচারণা। ব্যস্ত সময় পার করছে ফ্যাশন হাউসগুলো।

ইতোমধ্যেই রাজধানীর অভিজাত মার্কেট থেকে শুরু করে ফুটপাতের দোকানগুলোতে অনেকেই পছন্দের পণ্য কিনতে ভিড় করছেন। তরুণ-তরুণীরাই প্রধান ক্রেতা। বাদ পড়ছেন না শিশু-কিশোর থেকে বয়স্করাও। দেদার বিক্রি হচ্ছে স্যালোয়ার-কামিজ, পাঞ্জাবি-ফতুয়া, শাড়ি-চুড়ি, গহনা, মাটির তৈজসপত্রসহ নানা কারূপণ্য।

রাজধানীর গাউছিয়া, নিউ মার্কেট, চাঁদনীচক, বসুন্ধরা শপিং মল, ইস্টার্ন মল্লিকাসহ অধিকাংশ মার্কেট ভারতীয় সিরিয়ালে ব্যবহৃত নানা নামের পোশাকে সয়লাব। অধিক দামের ভারতীয় সিরিয়ালের ডিজাইনের এসব পোশাকের মান নিয়েও প্রশ্ন করেছেন অনেকে। দোকানিরা জানান, স্টার জলসা ও জি-বাংলা সিরিয়ালের নারী অভিনেত্রীদের পোশাকের চাহিদা অনেক বেশি। ক্রেতারা তার মান যাচাই করছেন না। সেগুলো সাজিয়েও রাখা হয়েছে দোকানের একেবারে সামনে।

নিউমার্কেটে পোশাক কিনতে গিয়েছিলেন আকরাম। সঙ্গে ছিল তার বান্ধবী। তারা পছন্দের পোশাক কিনছিলেন। এ সময় আকরাম বলেন, ‘পহেলা বৈশাখে ঘুরতে বের হব। তাই দুজনে একই রঙের পোশাক কিনব।’ গাউছিয়া মার্কেটে কথা হয় মিরপুরে আসমার সঙ্গে। তার ছোট দুই বোন এসেছেন। তিনি বলেন, ‘ছোটদের আনন্দকে প্রথমে দেখতে হয়। তাই দুই বোনকে নিয়ে এসেছি। বাসার সকলের জন্য নতুন পোশাক কিনেছি।’

সরেজমিনে গতকাল রাজধানীর বিভিন্ন এলাকার বিপণিবিতানগুলোতে ঘুরে দেখা যায়, বেশির ভাগ নামিদামি ব্র্যান্ডের শোরুমে ক্রেতাদের ভিড়। বিশেষ করে আড়ং, দেশীদশ, নবরূপা, জেন্টালপার্ক, ইনফিনিটি, ক্যাটস আইসহ সব শীর্ষ ব্র্যান্ডের দোকানে আনাগোনা বেশি। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ক্রেতাদের ভিড়ে জমজমাট থাকে দোকানগুলো। প্রত্যেকটি শোরুমে কেনাকাটার ওপর ১০ শতাংশ থেকে ৫০ শতাংশ ছাড়ের অফার চলছে।

যমুনা ফিউচার পার্কে আড়ং ফ্যাশন হাউসে বৈশাখ উপলক্ষে মেয়েদের জন্য রংবেরঙের থ্রিপিস, কুর্তি, টপস, শাড়ি ও ছেলেদের জন্য পাঞ্জাবি, ফতুয়া তুলেছেন। শিশুদের জন্য রয়েছে দারুণ সংগ্রহ। অঞ্জন’স শোরুমের সহকারী ব্যবস্থাপক সামজেদুল হক বলেন, ‘ক্রেতাদের পছন্দের কথা মাথায় রেখে আমরা পোশাক ও অন্যান্য পণ্য তুলেছি।’

পান্থপথের বসুন্ধরা সিটিতে ক্যাটস আইয়ের গিয়ে দেখা যায়, লাল-সাদা পোশাকের সংগ্রহ সবচেয়ে বেশি। লিলেন, জর্জেট বা সুতি কাপড়ে তৈরি পোশাকও রয়েছে। সেখানে কথা রামপুরা থেকে আসা জিতুন আহমেদের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘পাঞ্জাবি কিনব। লাল আর হলুদ রংই প্রাধান্য দিচ্ছি।’ ক্যাটস আইয়ের পরিচালক রিয়াদ সিদ্দিকী জানান, ‘আমাদের অনলাইন শপিংয়ে ভালো সাড়া পেয়েছি। নিজেদের চাহিদামতো ক্রেতারা খুঁজে নিচ্ছে প্রয়োজনীয় পণ্য। অনলাইনেও ব্যাপক সাড়া পড়েছে।’

"