ধুলোদূষণ বন্ধে জরুরি পদক্ষেপ দাবি

প্রকাশ : ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

শুষ্ক মৌসুমে ঢাকা মহানগরীতে ধুলোদূষণের প্রকোপ অত্যন্ত বেড়ে যায়। এর ফলে রাজধানীতে ধুলাজনিত রোগ ব্যাধির প্রকোপ অস্বাভাবিক বেড়েছে উল্লেখ করে তা বন্ধে জরুরি পদক্ষেপ ও দায়ীদের শাস্তির দাবি জানিয়েছে ১৭টি পরিবেশবাদী ও সামাজিক সংগঠন। গতকাল শনিবার রাজধানীর শাহবাগে চারুকলা অনুষদের সামনে আয়োজিত ‘ধুলো দূষণে নাকাল নগরবাসী, কর্তৃপক্ষ নির্বিকার, ধুলো দূষণ বন্ধে চাই জরুরি পদক্ষেপ’ শীর্ষক এক মানববন্ধনে এ দাবি জানানো হয়।

পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলন (পবা), পুরান ঢাকা নাগরিক উদ্যোগ, সুবন্ধন সমাজ কল্যাণ সংসদ, বিসিএইচআরডি, নোঙর, পরিবেশ আন্দোলন মঞ্চ, ডাবিøউবিবি ট্রাস্ট, বিডি ক্লিক, ইয়ুথ সান, ইয়ুথ ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশ, বাংলাদেশ নিরাপদ পানি আন্দোলন, সচেতন নগরবাসী, জন উদ্যোগ, মার্শাল আর্ট ফাউন্ডেশন, ইউনাউটেড পিপলস ট্রাস্ট, নাগরবাসী সংগঠন ও আদিবাসী যুব পরিষদ এ মানববন্ধনের আয়োজন করে।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, শহরে স্বাস্থ্যসম্মত পরিবেশ নিশ্চিত করতে অচিরেই ধুলা দূষণের উৎসগুলো বন্ধ করতে হবে। পানি, বিদ্যুৎ, গ্যাস লাইনের খোঁড়াখুঁড়ির সময় যাতে ধুলোদূষণ না হয় সেদিকে সংশ্লিষ্টদের দৃষ্টি রাখতে হবে। সিটি করপোরেশন, রাজউকসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের মনিটরিং বাড়াতে হবে। পাশাপাশি নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনা করে ধুলা দূষণ বন্ধে এলাকাভিত্তিক করণীয় নির্ধারণ জরুরি।

বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের মতামত ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এক প্রতিবেদনের কথা উল্লেখ করে বক্তারা বলেন, ধুলা দূষণের কারণে অন্যান্য সময়ের চেয়ে শুষ্ক মৌসুমে শিশুদের শ্বাসকষ্টজনিত রোগ বেড়ে যায়। এ সময় শিশু স্বাস্থ্য বিভাগে ভর্তি হওয়া রোগির ৪০ শতাংশের বেশি থাকে শ্বাসকষ্টজনিত বিভিন্ন রোগে আক্রান্তরা। অন্যদিকে ঢাকা মহানগরীর প্রায় ৯০ শতাংশ বাসিন্দা ভয়াবহ ধুলা দূষণের শিকার হন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ২০১৪ সালের প্রতিবেদন অনুযায়ী বিশ্বের ৯১টি দেশের এক হাজর ৬০০ শহরের মধ্যে সর্বাধিক বায়ুদূষেণের শিকার ২৫টি নগরীর মধ্যে বাংলাদেশের তিনটি শহর (ঢাকা, গাজীপুর ও নারায়ণগঞ্জ) রয়েছে। এর মধ্যে নারায়ণগঞ্জের অবস্থান ১৭তম, গাজীপুর ২১তম এবং ঢাকা ২৩তম।

 

"