উচ্ছেদ অভিযানেও দখলমুক্ত হচ্ছে না ফুটপাত

প্রকাশ : ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীর ফুটপাত দখলমুক্ত করতে বারবার উচ্ছেদ অভিযান চালালেও ফের দখল হয়ে যাচ্ছে ফুটপাত। এবার বিভিন্ন সড়ক ও ফুটপাত থেকে উচ্ছেদ হওয়া হকারদের পুনর্বাসনের জন্য ৯ কোটি ৯৮ লাখ টাকার প্রকল্প হাতে নিয়েছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি)। এ প্রকল্পের মধ্যে জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর মাধ্যমে কর্মমুখী প্রশিক্ষণ দেওয়া, ভ্যানগাড়ি সরবরাহ, ক্ষুদ্র ঋণ, হকারদের বিদেশ পাঠানো, হলিডে মার্কেট চালু, রেজিস্ট্রেশন ও আইডি কার্ড প্রদান করা হবে। সে লক্ষ্যে সম্প্রতি স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ে প্রকল্প প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে বলে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন সূত্রে জানা গেছে।

অন্যদিকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) এলাকায় রাস্তা ও ফুটপাত দখলমুক্ত করতে গত ১ ফেব্রুয়ারি থেকে অভিযান শুরু হয়েছে। দখলমুক্ত করার এ অভিযানটি আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলবে। এ লক্ষ্যে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) এলাকায় রাস্তা, ফুটপাত ও মিডিয়ান পরিষ্কার রাখা এবং অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে সাত সদস্য বিশিষ্ট টাস্কফোর্সও গঠন করা হয়েছে। টাস্কফোর্স আগামী ২৮ তারিখ পর্যন্ত ক্রাশ প্রোগ্রাম চালাবে।

একদিকে ফুটপাত দখলমুক্ত করতে অভিযান অন্যদিকে নতুন প্রকল্পের অংশ হিসেবে হকারদের ভ্যান বিতরণের সিদ্ধান্ত নিয়ে সমালোচনা করেছেন হকার নেতারা। তারা বলছেন, এ প্রকল্পের আওতায় একটি অংশ হিসেবে হকাররা নির্ধারিত স্থানেই থাকবেন। তাদের ব্যবসা পরিচালনা করতে দেওয়া হবে ভ্যানগাড়ি। অফিস টাইম ছাড়া এবং ছুটির দিনে সকাল ও সন্ধ্যায় তারা রাস্তায় বসতে পারবেন। ভ্যানগাড়ি রাখার জন্য আলাদা স্থানও দেওয়া হবে। এমন উদ্যোগের কথা শুনেছি কিন্তু পরবর্তিতেই আবার গত ১ তারিখ থেকে হকার উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়েছে। আসলে আমরা কোনদিকে যাব, আমাদের একটা স্থায়ী সমাধান দরকার।

অন্যদিকে এ মাসে শুরু হওয়া ফুটপাত উচ্ছেদে অভিযান নিয়ে হকার্স নেতারা বলছেন, তাহলে হকার পুনবার্সনের প্রকল্প পাশ করে কী লাভ। পুনর্বাসনের এমন উদ্যোগ নেওয়ার পর আবার কেন চলতি মাস থেকে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনার উদ্যোগ? ‘হকারদের জন্য ভ্যান আবার ফুটপাত দখলমুক্ত করতে অভিযান’ আমরা কোনদিকে যাব? পাশাপাশি ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের অনেক কর্মকর্তারও এ বিষয়ে সমালোচনা করেছেন।

হকার্স সংগ্রাম পরিষদের সমন্বয়ক আবুল হোসেন বলেন, হকারদের ভ্যান বিতরণ করে ভ্যানে দোকান দেওয়া এটা কোনো সমাধান হতে পারে না। পথচারীদের চলাচলের জন্য ফুটপাত আর সেই ফুটপাতে যদি ভ্যানে দোকান থাকে তাহলে তো এটা কোনো সমাধান হলো না। হকারদের বারবার উচ্ছেদ করার আগে পুনর্বাসনের সঠিক সমাধান আগে করা উচিত। কারণ, পুনবার্সনের সমাধান ছাড়া হকাররা মানবেতর জীবনযাপন করেছে। একদিকে ফুটপাতে বসলে অভিযান চালিয়ে উচ্ছেদ করা হচ্ছে অন্যদিকে এতদিন অতিবাহিত হলেও হকার পুনবার্সনের কোনো স্থায়ী সমাধানও হচ্ছে না।

"